শ্রীনগরে থানায় অভিযোগ করার অপরাধে গ্রাম্য টাউটদের হাতে অবরুদ্ধ

জেলার শ্রীনগরে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়ে সর্বস্ব হাড়িয়ে এক ব্যবসায়ী থানায় অভিযোগ করার অপরাধে পরিবারসহ গ্রাম্য টাউটদের হাতে অবরুদ্ধ হয়ে আছে। এঘটনা কেন্দ্র করে উপজেলার পার্শ্ববর্তী সিরাজদিখানের রক্ষিতপাড়া গ্রামে গত কয়েকদিন যাবত তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছে। অভিযোগে জানাগেছে, গত ৩ অক্টোবর সন্ধ্যায় ব্যবসায়ী নুর হোসেন (৫০) শ্রীনগর উপজেলার সিংপাড়ার বাজারের উত্তর পার্শ্বে বেলতরী স্কুল সংলগ্ন এলাকা দিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন।

এসময় স্থানীয় সন্ত্রাসী বাপ্পি, মামুন ও ফয়সাল বাবু ব্যবসায়ী নুর হোসেনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে মাথায় আঘাত করে সাথে থাকা প্রায় আড়াই লাখ টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এসময় ঘটনার প্রতক্ষ্যদর্শীরা এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে গেলেও গুরুতর আহত ব্যবসায়ী নুর হোসেনকে রক্তাক্ত অবস্থায় এলাকাবাসী উদ্ধার করে সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করে। দু’দিন পরে শ্রীনগর থানায় আগত ব্যবসায়ীর ছেলে রাসেল খান ৩ সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে মামলা করেন।

এতে ক্ষুব্ধ সন্ত্রাসীরা গ্রাম্যটাউটদের নিয়ে মামলা তুলে নিতে ব্যবসায়ী নুর হোসেনের পরিবারকে বাড়ীতে অবরুদ্ধ করে রাখে তারা মামলা তুলে না নিলে ঐ পরিবারের কাউকে বাড়ি থেকে বের হতে দিবেনা বলে সাফ জানিয়ে দেয়। এ ব্যাপারে আহত নুর হোসেনের পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয় পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও ছিনিয়ে নেয়া আড়াই লাখ টাকা উদ্ধার না করে সন্ত্রাসীদের সহায়তা করছে।

এ ব্যাপারে স্থানীয় আওয়ামীলীগের সভাপতি আবদুল খালেক বেপারীর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। অপরদিকে শ্রীনগর থানার ওসি মাহবুবুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান শ্রীনগর থানায় মামলা দায়ের করলেও আসামীরা সিরাজদিখান থানায় বসবাস করছে তাই আসামী গ্রেফতারের দায়িত্বও সিরাজদিখান থানা পুলিশের। অপরদিকে সিরাজদিখান থানার ওসি আবুল বাসার জানিয়েছেন যেহেতু শ্রীনগর থানার মামলা তাই আসামীকে গ্রেফতার করার দায়িত্ব সেই থানার পুলিশের।

মুন্সিগঞ্জেরকাগজ

Leave a Reply