লৌহজংয়ের বাসুদিয়া গ্রামের পিন্টু ইতালিতে খুন: মামলার প্রস্তুতি

মুন্সিগঞ্জের লৌহজং উপজেলার বাসুদিয়া গ্রামের মৃত আব্দুল আউয়াল শেখের ছোট ছেলে প্রবাসী পিন্টু শেখ (৩১) ইতালিতে খুন হয়। দাফনের ১৫ দিন পর বাংলাদেশে খুনীর বিরুদ্ধে হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে।

নিহতের ভাই নান্নু শেখ জানান, আমার ভাই ছুটিতে এসে ৮ মাস হয় ইতালি যায়। এই আট মাসে সে কোন টাকা দেশে পাঠায়নি। আমরা জানতে পেরেছি সে বেশ কিছু টাকা তার রুমমেট বি,বাড়িয়ার নবিনগর উপজেলার টি এন টি রোডের সরকার বাড়ীর আঃ রাজ্জাক সরকারের ছেলে ইয়াছিন সরকারকে দিয়েছিল। পরবর্তিতে ইয়াছিনের সাথে সম্পর্ক খারাপ হয়েছিল। ইয়াছিন ওখানে কোন কাজ করত না বেকার ছিল।

ইয়াছিনের বোন জামাই ওখানে থাকত সেও অনেক তথ্য দিয়েছে। আমাদের আরও অনেক আত্বীয় স্বজন রয়েছে তারাও অনেক তথ্য দিয়েছে। আমার আরেক ভাই রানা শেখ ওখানে ছিল সে লাশ নিয়ে দেশে এসেছে। ওখানকার পুলিশ রিপোর্ট অনুযায়ী ইয়াছিনকেই সন্দেহ করা হচ্ছে। তাছাড়া খুন হওয়ার রাতেই ইয়াছিন পিন্টুকে সেই পার্কেই ডেকে নিয়ে গিয়েছিল। পরদিন সকালে ইয়াছিন বাসা থেকে জিনিসপত্র নিয়ে কেটে পরে এবং রাতেই বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে দেশে চলে আসে।

এসব কারণেই তার প্রতি সন্দেহ বেড়েছে। তিনি আরও জানান, ইয়াছিনের গ্রামের বাড়ির এলাকায় গিয়ে তাদের সম্মন্ধে জেনে ভয়ে আর তাদের বাড়ী যাইনি। ইতালির পুলিশ রিপোর্ট ও অন্যান্য প্রমানাদি শীঘ্রই হাতে চলে আসবে। আসলেই ইয়াছিনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করা হবে।

উল্লেখ্য, গত ২৯ সেপ্টেম্বের গভীর রাতে ইতালির মন্তেভেরদে একটি পার্কে দুর্বৃত্তরা ধারালো অস্ত্রের আঘাতে পিন্টু শেখকে নির্মমভাবে খুন করে। ১১ সেপ্টেম্বর পিয়াম্বা ভিডরিও পার্ক মসজিদে দুপুরে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। ১৪ অক্টোবর তার লাশ বাংলাদেশে আসে ও রাতেই জানাজা শেষে বাসুদিয়া কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

বাংলাএক্সপ্রেস

Leave a Reply