হঠাৎ গরম পড়ায় উদ্বিগ্ন টঙ্গীবাড়ীর আলু চাষীরা : বাড়তি পরিচর্যায় ব্যাস্ত কৃষক

হঠাৎ করে আবহাওয়া পরিবর্তনের ফলে উদ্বিগ্ন হয়ে পরেছে টঙ্গীবাড়ীর আলু চাষিরা। গত কয়েকদিন যাবৎ প্রচন্ড গরম পড়ায় এবং মেঘাচ্ছন্ন আবহাওয়ার কারনে আলু জমিতে দ্রুত রোগ বালাই ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ আলু উৎপাদনকারী এ উপজেলার কৃষকরা এখোন আলু গাছের বাড়তি পরিচর্যায় ব্যাস্ত সময় পার করছেন। কাক ডাকা ভোর থেকে আলু গাছে ঔষধ স্প্রে, পানি সেচ, ইউরিয়া সার প্রয়োগ, আগাছা পরিস্কার নিয়ে ব্যাস্ত কৃষক।

গত ৫ বছরের লোকসান পুষিয়ে নিতে স্ত্রী ,কন্যার গয়না বন্ধক মহজনের কাছ হতে কর্য (আলুর উপর লগনী) নিয়ে টাকা সংগ্রহ করে পুরোদমে আলু আবাদ করেছিলো তারা। ৪ বছর লোকসানের পর গত-বছর নিজ বাড়ির গোলায় সংরক্ষিত আলুর উচ্চ মূল্য পেয়ে আলু চাষে অনেকটা আশার আলো দেখছিলো তারা। কিন্তু তাদের হিমাগারে সংরক্ষিত আলুর নায্য মূল্য না পেয়ে আবারও হাতাশাগ্রস্থ তারা। তারপরেও দির্ঘদিন যাবৎ আলু উৎপাদনে পারদর্শী টঙ্গীবাড়ীর কৃষকরা অন্য ফসল চাষাবাদে অভ্যস্ত না হওয়ায় বার বার লোকসানের পরেও আলু চাষ চালিয়ে যাচ্ছেন।

গত বছর বিপুল পরিমান আলু বিদেশে রপ্তাণী হওয়ায় তারা আশা করছেন এবার সরকার আরো বেশি আলু বিদেশে রপ্তানী করবেন ফলে লাভবান হবেন তারা। বছরের শুরুতেই বীজ আলু উচ্চ মূল্যের কারনে হোচঁট খায় তারা। পরবর্তীতে আবহাওয়ার এই বৈরী আচরনের কারনে একদিকে রোগবালাইয়ে ছড়িয়ে পরে আলু উৎপাদন কম হওয়া অন্যদিকে উৎপাদন খরচ বৃদ্ধি পাচ্ছে। টঙ্গীবাড়ী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা গোলাম রায়হান জানান ,এ বছর উপজেলার ৯ হাজার ৮ শত হেক্টর জমিতে আলু চাষ করা হয়েছে। খারাপ আবহাওয়া বর্তমানে বিরাজ করলেও আসা করা হচ্ছে তা কিছুদিনের মধ্যে নিরসন হবে।

বিক্রমপুর চিত্র

Leave a Reply