শিমুলিয়ায় বাস চাঁপায় দাদী নিহত, নাতী গুরুতর আহত

সুমিত সরকার সুমন: নাতীকে নিয়ে স্কুলে যাওয়ার পথে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ে আজ বুধবার যাত্রীবাহি বাসের চাঁপায় নিহত হয়েছে দাদী। তার নাম মালেকা বানু (৫৫)। এ সময় স্কুল ছাত্র নাতী মো: হাবিব (০৭) গুরুতর আহত হয়েছে। ঘাতক বাসটি শনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ। বাস চাঁপায় নিহত মালেকা বানু জেলার লৌহজং উপজেলার কুমারভোগ এলাকার সলিল ফকিরের স্ত্রী।

এদিকে, বাস চাপায় পথচারী নিহত হওয়ার ঘটনায় প্রায় ৩ ঘন্টা ধরে মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। দুপুর দেড়টায় এ রিপোর্ট লেখার সময় পর্যন্ত মহাসড়কে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

মাওয়া নৌ-ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মো: ইউসুফ বাস চাপায় মালেকা বানুর নিহত হওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, নিজ বাড়ি থেকে নাতী হাবিবকে দক্ষিন শিমুলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নিয়ে যাচ্ছিল। হাবিব ওই বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেনীর ছাত্র।

স্কুলে পৌছানোর আগে বেলা সাড়ে ১০ টার দিকে শিমুলিয়া ফেরীঘাটের কাছে মহাসড়কে অজ্ঞাত পরিবহনের একটি বাস দাদী মালেকা বানু ও নাতী হাবিবকে চাপা দিয়ে চলে যায়।

ঘটনাস্থলেই দাদী মালেকা বানুর মৃত্যু হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় নাতী হাবিববে শ্রীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছে। বাস চাঁপায় দাদী নিহত হওয়ায় মহাসড়কে তাৎক্ষনিক যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

এই মূহুর্তে শিমুলিয়া ফেরীঘাট থেকে মাওয়া চৌরাস্তা পর্যন্ত দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। পুলিশ যানজট নিরসনের প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। মহাসড়কে যানজটে আটকা পড়ে আছে ৫ শতাধিক যানবাহন।

বিডিলাইভ

Leave a Reply