মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে বাড়ি থেকে উচ্ছেদের পায়তারা

টঙ্গীবাড়ী উপজেলার বেসনাল গ্রামে এক মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীকে তার ধন্যাট্য প্রতিবেশী কাঠ ব্যাবসায়ী মজিবর রহমান সর্দার চক্রান্ত করে বাড়ি থেকে উচ্ছেদের পায়তারা করছে। বিগত ২ বছরে কয়েকবার জোর করে উচ্ছেদের চেষ্টা করে এলাকাবাসীর প্রতিরোধে ব্যার্থ হয় সে। এ ঘটনায় নিহত মুক্তিযোদ্ধা নুর ইসলাম চোকদার এর স্ত্রী ফাতেমা বেগম মুন্সীগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে পিটিশন মামলা নং-৭৪৯/১৩ দায়ের করে।

উক্ত মামলা চলমান অবস্থায় আদালত টঙ্গীবাড়ী সহকারী কমিশনার ভূমি অফিসকে সরেজমিনে তদন্ত করে দখল সর্ম্পকে প্রতিবেদন দিতে বললে উক্ত অফিসের সার্ভেয়ার কাজী মাহমুদুল হাসান তদন্ত পূর্বক একটি প্রতিবেদন আদালতে প্রেরণ করে। উক্ত প্রতিবেদনে সার্ভেয়ার ৩-৪ শতাংশ জমি মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী ফাতেমা দখলে আছে বলে উল্লেখ করে।

কিন্তু সরেজমিনে শনিবার দুপুরে গিয়ে দেখা যায় মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী ফাতেমা বেগম উপজেলার বেসনাল মৌজার ৩৩৮ খতিয়ানের আরএস ৮৩৭ দাগের জমি প্রায় ৪৫ বছর যাবৎ ১৩৬০ স্কয়ার ফিট এর একটি পাকা ভবন এবং ১৮০০ স্কয়ার ফিটের দুটি টিন ও কাঠ দিয়ে তৈরী ঘরসহ প্রায় ২০ শতাংশ ভিটে বাড়ি ভোগ দখল করে আসছেন।

কিন্তু সার্ভেয়ার মাহমুদুল হাসান মজিবুর সর্দার এর নিকট হতে টাকা খেয়ে উক্ত মনগড়া প্রতিবেদন দেওয়ায় মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী ও উক্ত এলাকার জনগনের মনে তিব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে। ফাতেমার প্রতিবেশী শামসুদ্দিন জানান, আমরা জন্মের পর হতেই দেখছি ফাতেমারা উক্ত জমি ভোগ দখল করে আসছে।

এ ব্যাপারে সার্ভেয়ার মাহমুদুল হাসান এর মোবাইলে যোগাযোগ করলে সে জানায়, এলাকাবাসী বলছে ফাতেমা বেগম শুধু কাঠের তৈরী একটি ঘরে বসবাস করে আমি সেই মোতাবেক রির্পোট তৈরী করে আদালতে পাঠাইছি। সাংবাদিকরা পাকা ভবনের ভেতরে এখন অবস্থান করে ফাতেমা বেগম মাছ কাটছে সার্ভেয়ারকে জানালে, সে সাংবাদিকদের তার সাথে কথা বলার জন্য অফিসে যেতে বলে ।

এ ব্যাপারে মজিবুর সর্দার এর সাথে যোগাযোগ করলে সে জানায়, উক্ত সম্পত্তি আমি মোতাহার খন্দকার এর কাছ হতে ক্রয় করেছি।

বিক্রমপুর চিত্র

Leave a Reply