পদ্মাসেতুর অগ্রগতি ও ট্রেনের অবস্থান জানুন ঘরে বসেই

ট্রেনের অবস্থান ও সময়সূচি জানতে আর রেল স্টেশনে ধরণা দিতে হবে না। একইভাবে স্বপ্নের পদ্মাসেতুর কাজের সর্বশেষ অগ্রগতি জানতেও আর পদ্মা পাড়ে যেতে হবে না। এখন হাতে একটি স্মার্টফোন থাকলে ঘরে বসেই জানা যাবে ট্রেনের সর্বশেষ অবস্থান ও পদ্মাসেতুর সর্বশেষ অগ্রগতি।

দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় তথ্যপ্রযুক্তি উৎসব ‘ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড ২০১৫’তে রেলপথ, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের স্টলে দর্শনার্থীদের এই বিষয়ে সম্যুখ ধারণা দেওয়া হচ্ছে। তারা কিভাবে ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে সেবা পেতে পারেন।

বুধবার (১১ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন (বিআইসিসি) কেন্দ্রে চার দিনব্যাপী মেলার তৃতীয় দিনে দর্শনার্থীদের মনোযোগ আকর্ষণ করছে স্টলটি।

মেলায় ৫৬ নম্বর স্টলে বাংলাদেশ রেলওয়ে দর্শনার্থীদের উপচেপড়া ভিড় দেখা গেছে। কৌতুহল বশত ট্রেনের অনলাইনের সুবিধাগুলো জানানো হচ্ছে।

স্টল থেকে বলা হচ্ছে, মুঠোফোনেই এখন সব তথ্য ঘরে বসে জানা যাবে ট্রেনের অবস্থান। এতে এই সুবিধা পেতে এসএমএস করতে হবে ১৬৩১৮ নম্বরে।

স্টল থেকে আরো বলা হচ্ছে, অাপনার মেসেজ অপশনে গিয়ে লিখুন Tr স্পেস ট্রেনের নম্বর অথবা ট্রেন কোড নম্বর, এর পরে পাঠিয়ে দিতে হবে ১৬৩১৮ নম্বরে।

মেলায় জিগাতলা থেকে এসেছেন মিরপুর বাংলা কলেজের শিক্ষার্থী সজিব। তিনি Tr 710 স্পেস এর পরে 16318 নম্বরে এসএমএস পাঠিয়ে সূর্বণা ট্রেনের অবস্থান জেনে নিলেন। শুধু ট্রেনের অবস্থান নয় ট্রেনটি কত সময় পরে স্টেশনে আসবে, ডিলে হয়েছে কত সময়, কোনো স্টেশনে থামবে কিনা ইত্যাদি সার্বিক তথ্য জানা যাবে ঘরে বসেই।

বাংলাদেশ রেলওয়েতে এই সেবা দেওয়ার কাজে নিয়োজিত সানক্রস লিমিটেড। প্রতিষ্ঠানটির জুনিয়র এক্সিকিউটিভ খায়রুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, এখন ট্রেনের সময়সূচি ও অবস্থান জানতে হলে আর স্টেশনে যেতে হবে না। ঘরে বসেই এসএমএস-এর মাধ্যমে ট্রেনের অবস্থান জানা যাবে। এতে করে বাড়তি সময়টুকু প্রিয়জনের সঙ্গে কাটানো যাবে।

অপরদিকে সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয় থেকে স্বপনের পদ্মাসেতুর নানা তথ্য দেওয়া হচ্ছে। সেতু বিভাগ এবং এর অধীনস্থ বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের কাযর্ক্রম সম্পর্কে সর্বশেষ তথ্য জানতে হলে www.bridgedivision.gov.bd এবং www.bba.gov.bd ভিজিট করলেই পদ্মাসেতুসহ নানা সেতুর তথ্য জানা যাবে। সেতুর সার্বিক পরিস্থিতি ব্যয় কবে নাগাদ শেষ হবে সব কিছুই ওয়েবসাইটে জানা যাবে।

সেতু নির্মাণে চুক্তিমূল্য, চুক্তির মেয়াদ, কাজ শুরুর তারিখ, কাজ সমাপ্তির তারিখ, ঠিকাদারের নাম ইত্যাদি বিষয়ে জানা যাবে।

এছাড়া পদ্মাসেতুর টোলও অনলাইনের মাধ্যমে আদায় করা হবে। এ জন্য টোল প্লাজায় একধরনের ডিভাইস স্থাপন করা হবে। এতে করে টোল আদায়ের পাশাপাশি কোনো অবৈধ গাড়ি পদ্মাসেতুর উপরে উঠলে সঙ্গে সঙ্গে ধরা পড়ে যাবে।

পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্প এলাকায় যাদুঘর স্থাপনের জন্য সেতু প্রকল্প ও প্রাণিবিদ্যা বিভাগের সঙ্গে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। এই সব তথ্যও ওয়েব সাইডের মাধ্যমে জানা যাবে।

সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সঙ্গে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ফর সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) যৌথভাবে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডের আয়োজন করেছে।

বিশ্বের ২৫টি দেশ থেকে আসা ৮৫ জন তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ, ১২০টি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এবং ১০০টি সরকারি সংস্থার অংশগ্রহণে বসেছে বিশ্ব প্রযুক্তির এ মিলন মেলা। আয়োজনের সহযোগিতায় রয়েছে অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) এবং বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বেসিস)।

প্রথম দু’দিনের মতো তৃতীয় দিন বুধবারও রয়েছে বিভিন্ন সেমিনার, বিজনেস ও কর্মশালার ওপর ১১টি সেশন, রয়েছে ৩টি কনফারেন্স। বৃহস্পতিবার (১২ ফেব্রুয়ারি) পর্দা নামবে মেলার।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর

Leave a Reply