ঈদ বাজারঃ শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে

লাবলু মোল্লা: শেষ মুহুর্তে জমে উঠেছে মুন্সীগঞ্জের ঈদ বাজার। ঈদ মানে আনন্দ, ঈদ মানে নতুন পোষাক। ঈদ মানে ভ্রাতৃত্বের বন্ধনের মিলন মেলা। নতুন পোশাক নতুন দিন সামনে আসছে ঈদের দিন। আর মাত্র হাতে গোনা কয়েক দিন পরই পবিত্র ঈদ-উল ফিতর। মুসলিম সম্প্রদায়ের অন্যতম প্রধান এই উৎসবের ঈদের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে জেলা শহরের বিভিন্ন মার্কেটের বিপণী বিতান ও ফ্যাশন হাউসগুলোতে বাড়ছে ক্রেতা সমাগম। ক্রেতার ভিড়ে মার্কেটগুলিতে যেন তিল ধারণের ঠাঁই নেই। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত বিভিন্ন বয়সী ক্রেতা সাধারণের পদচারণায় মুখরিত থাকছে মার্কেটগুলো।

মসজিদ মার্কেটের কয়েকজন ব্যবসায়ীর সাথে কথা বলে জানাগেছে এখানকার ক্রেতারা ঢাকা শহরের ফ্যাশন হাউজগুলোর মতো মুন্সীগঞ্জের সকল বিপনী বিতান গুলোতেও নতুন নতুন ডিজাইনের পোশাক খুঁজে বেড়ান। দোকানীরা ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে উঠিয়েছেন শহুরে লেভেলের পোশাক। এর মধ্যে মেয়েদের পোশাক থ্রি পিসের মধ্যে পাখি, কিরণমালা, ঝিনুকমালা, বোঝেনা সে বোঝে না অন্যতম। এ বছর ভারতীয় একটি সিরিয়ালের নায়িকার নামের সাথে মিল রেখে পাখি, কিরণমালা ও ঝিনুকমালা নামের পোশাক বিক্রি হচ্ছে বেশি। মধ্যবয়স্ক নারীদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছে ভারতীয় শাড়ী ও পাকিস্তানি বিভিন্ন থ্রিপিস। প্রতিটি পাখি থ্রি পিস ৩ থেকে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে। বাচ্চাদের পোশাকের মধ্যে লুঙ্গি ডেন্স, পুরুষের কাতুয়া এবং নারীদের বাহা শাড়ি এবারের ঈদে নতুন আকর্ষণ। দাম একটু বেশি হলেও ক্রেতাদের পছন্দ সেদিকেই। ছেলেদের পছন্দের তালিকায় বেশি বিক্রি হচ্ছে দেশীয় ও ভারতীয় শার্ট ও ডিজাইন শার্ট এবং বাহারী ডিজাইনের জিন্স প্যান্ট ও রঙিন নকশা পাঞ্জাবি।

শহিদুল ইসলাম শহিদ এবং খোকন নামের দুই ব্যবসায়ী জানান, রোজার শুরু থেকেই এবার বেচাকেনা ভালো। তার দোকানে সব সমায় ভিড় জমে থাকে। লাভ কম করে বলে বেশি বেচাকেনা হয় তার বলে দাবি তাদের।

দোকানী স্বাধীন আহম্মেদ জানান, ক্রেতারা প্রতিদিন যাচাই-বাছাই করে ঘুরে ফিরলেও যাওয়ার সময় কিছু না কিছু কিনে নিয়ে যাচ্ছেন। এবার মেয়েদের পছন্দের তালিকায় থাকা ভারতীয় পাখি পোশাক ৩ থেকে ৫ হাজার টাকায়, পানকৌড়ি ৫ থেকে ৭ হাজার টাকায় এবং নেটের উপর ফ্লোরটাচ পোশাক ৫ থেকে ৯ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এ ছাড়াও বিভিন্ন মার্কেটের সামনে, জেলা পোস্টআফিসের দেওয়াল ঘেষে রয়েছে ফুটপাতের মার্কেট। এসব স্থানে স্বল্প আয়ের মানুষের ভিড় রয়েছে। এ সব স্থানের দোকানীরা বিকি-কিনি করতে যেন হিমশিম খাচ্ছে। কসমেটিক্সসহ নানা দোকানে রয়েছে চোখে পড়ার মত ভিড়। সব মিলে মুন্সীগঞ্জ শহর এখন ব্যাস্ত ঈদ কেনাকাটায়।

বিডি-প্রতিদিন

Leave a Reply