শিশুর শ্লীলতাহানির সাজা ৮০ হাজার টাকা!

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে ইদ্রিস আলী (৫৫) নামের এক ব্যক্তি আট বছরের শিশুর শ্লীলতাহানি করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত ব্যক্তি স্থানীয় মালখানগর ইউনিয়নের নাইশিং গ্রামের ট্রলারচালক। শ্লীলতাহানির ঘটনা প্রকাশ পেলে এলাকার ইউপি সদস্যসহ গ্রামের মাতব্বররা ধর্ষকের পক্ষ নিয়ে সালিশ বৈঠকে বসে অপরাধের জন্য ৮০ হাজার টাকা জরিমানার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বৈঠক শেষ করেছেন। শ্লীলতাহানির এ অভিযোগ উঠেছে ১৫ সেপ্টেম্বর দুপুরে। শুক্রবার রাত ৮টায় বৈঠক হয়েছে মালখানগর ইউনিয়নের নাইশিং গ্রামের আজিজ খানের বাড়ির পাশের ভিটায়। শিশুর মা বলেছেন, টাকা আমরা পাইনি। গরিব বলে সমাজের লোকজনের কাছ থেকে আমি ন্যায়বিচার থেকে বঞ্চিত হয়েছি।

১৫ আগস্ট কাজীরবাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীর এক ছাত্রী স্কুল শেষে বাড়ি এসে চকোলেট আনতে রাস্তার দোকানে গেলে প্রতিবেশী মামা ইদ্রিস আলী ছাত্রীটিকে দোকান থেকে ডেকে বাড়ি নিয়ে গিয়ে নির্জন ঘরের একটি কক্ষে ছাত্রীর শরীরের বিভিন্ন স্পর্শকাতর অঙ্গে হাত দেন। এ সময় ভয়ে শিশুটি কান্নাকাটি শুরু করলে তাকে ঘটনা কাউকে না বলার জন্য ভয় দেখান। বাড়িতে গিয়ে মেয়েটি তার মাকে বিষয়টি জানায়। তার মা বাবাকে নিয়ে এলাকার স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের বিষয়টি অবহিত করেন। পাঁচ দিন পেরিয়ে গেলেও গ্রামের মাতব্বররা কোনো কিছুর সুরাহা না করায় আবার তাদের কাছে গেলে, তারা বিষয়টি সিরাজদিখান থানা পুলিশকে জানাতে বলে।

সিরাজদিখান থানার ওসি (প্রশাসন) ইয়ারদৌস হাসান বলেন, কাজীরবাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীর স্কুলছাত্রীর শ্লীলতাহানি করার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে।

যুগান্তর

Leave a Reply