নাব্যতা সংকটে ফেরি চলছে ঝুঁকি নিয়ে

সুমিত সরকার সুমন: শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটে নাব্যতা সংকটের কারণে ফেরি চলছে ঝুঁকি নিয়ে। শীত মৌসুমের শুরুতে পদ্মা নদীর পানি হ্রাস পাওয়ার কারণে ফেরি চলাচলে বিঘ্ন হচ্ছে। শিমুলিয়া ঘাট সংলগ্ন এ্যাপ্রোজ নৌরুট, বেসিন এলাকা ও মাগুর খন্ড থেকে হাজরা চ্যানেল পর্যন্ত নাব্যতা সংকটে রয়েছে বেশ কিছু এলাকা।

এসব এলাকা দিয়ে ফেরি চলাচলের সময় তলার অংশ মাটির সাথে ঘেষে ঘেষে চলতে হচ্ছে। এমন ঝুঁকি নিয়ে চলছে ফেরি। তবে বড় ফেরি রুহুল আমিন ও শাহ পরান বসা রয়েছে। প্রতিদিন নদীর পানি কমতে থাকায় শিমুলিয়া ১ ও ২ নং ফেরি ঘাট সংলগ্ন ড্রেজিং অব্যাহত রয়েছে। ডেজিং এর কারণে ঘাট এলাকায় আসা যাওয়া ফেরির চলাচলে বিঘœতার কারণে একটু সময় বেশি লাগছে।

মাওয়া বিআইডব্লিউটিসি ম্যানেজার গিয়াসউদ্দিন পাটোয়ারী জানান, পানি স্বল্পতার কারণে ফেরি গুলো ঘাটে ভিরতে ও ছেড়ে যাওয়ার সময় নদীর তলদেশে ঠেকে ঠেকে ঝুকি নিয়ে চলতে হচ্ছে। তাতে করে ফেরি গুলোর ইঞ্জিন ও বডির ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে। এভাবে পানি কমতে থাকলে শীতে ঘন কুয়াশায় ফেরি চলাচলে মারাত্বক বিঘœ ঘটতে পারে।

বিআইডব্লিউটিসির মেরিন অফিসার একেএম শাজাহান জানান, পদ্মা নদীর পানি প্রতিদিন ৬/৭ সে.মি. করে হ্রাস পাচ্ছে। শিমুলিয়া এপ্রোজ ও বেসিন এলাকায় ২ টি ড্রেজার দিয়ে পলি অপসারণ করা হচ্ছে। এক পাশে ড্রেজিং করার সময় অপর পাশ দিয়ে ফেরিগুলো ঝুকি নিয়ে চলাচল করছে।

বিডিলাইভ

Leave a Reply