শ্রীনগরে কাজের মেয়েকে ধর্ষণ!

আরিফ হোসেন: শ্রীনগরে জোড় পূর্বক ঘরে ঢুকে কাজের মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে ধর্ষক সহ তার ৩ সহযোগীর বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে গৃহকর্তী মিনা গিয়াস পুস্প বাদী হয়ে শ্রীনগর থানায় অভিযোগটি দায়ের করেন।

অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার হাসাড়া ই্উনিয়নের লস্করপুর গ্রামের সৌদি আরব প্রবাসী গিয়াসউদ্দিনের বাড়িতে কয়েক দিন পূর্বে একই গ্রামের তফসের আলীর ছেলে আরিফ, আব্বাস আলীর ছেলে সাবু, মোবারক মিয়ার ছেলে রণি ও ইউসুফ আলীর ছেরে রায়হান বিল্ডিংয়ের রংমিস্ত্রির সহযোগী হিসাবে কাজ শুরু করে। এসময় তাদের চোখ পড়ে ঐ বাড়ির ১৪ বছরের কাজের মেয়ের উপর।

প্রায় দশ দিন পূর্বে রংয়ের কাজ শেষ হয়ে গেলেও গত ২ ডিসেম্বর দুপুর বারটার দিকে ওই চারজন ফাকা বাড়িতে এসে রংয়ের কাজ বাকী আছে বলে কাজের মেয়েকে গেট খুলে দিতে বলে। কাজের মেয়ে গেট খুলে দেওয়ার সাথে সাথে আরিফ তাকে জোড় পূর্বক একটি কক্ষে নিয়ে ধর্ষণ করে। এসময় বাকী তিনজন কলাপসিবল গেট লাগিয়ে পাহাড়া দেয়।

গৃহকর্তী মিনা গিয়াস জানান, তার স্বামী ও সন্তানরা প্রবাসে থাকেন। কাজের মেয়েকে নিয়ে তিনি একাই বাড়ীতে থাকেন। মেয়েটির বাড়ী বরিশাল। চার মাস পূর্বে তার বাড়ীতে কাজে যোগ দেয়। গত ৩০ নভেম্বর তিনি অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাকে ঢাকার সুমনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ সুযোগে তার কাজের মেয়েকে ধর্ষণ করা হয়। ঘটনার পরপরই মেয়েটি আশ-পাশের লোকজনকে বিষয়টি জানায়। তিনি হাসপাতাল থেকে গত রবিবার দিন বাড়িতে এসে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আহসান হাবীবকে বিষয়টি জানানোর পর গতকাল শ্রীনগর থানায় এসে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ সাহিদুর রহমান লিখিত অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে জানান, ঘটনাটি তদনন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply