পদ্মা সেতুর মূল চ্যালেঞ্জ নদী শাসন

পদ্মা সেতু বাস্তবায়নে এখন প্রধান চ্যালেঞ্জ নদী শাসন করা বলে মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। শনিবার ডেইলি স্টার ভবনে `পদ্মা ব্রিজ, নিউ লাইফ লাইন অব ডেভলপমেন্ট` শীর্ষক এক গোল টেবিল বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

ইংরেজি দৈনিক দি ডেইলি স্টার ও স্ট্রিল তৈরির প্রতিষ্ঠান বিএসআরএম যৌথভাবে এ বৈঠকের আয়োজন করে।

গোলটেবিল বৈঠকে পদ্মা সেতু প্রকল্পের প্রধান উপদেষ্টা প্রকৌশলী ড. জামিলুর রেজা চৌধুরীর সঞ্চালনায় আরও উপস্থিত ছিলেন, ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টার-এর সম্পাদক মাহফুজ আনাম, শরিয়তপুর-৩ আসনের সাংসদ নাঈম আব্দুল রাজ্জাক, মুন্সীগঞ্জ-২ আসনের সাংসদ সাগুফতা ইয়াসমিন (এ্যামিলি) বুয়েটের অধ্যাপক ড. আমানত প্রমুখ।

মন্ত্রী বলেন, পদ্মা প্রমত্ত, আমাজন নদীর পর বিশ্বের দ্বিতীয় পানির স্রোত। পদ্মার ভাঙ্গন তাণ্ডব বার বার সেতুর কাজকে বাধাগ্রস্থ করছে। কিন্তু আমরা তাতে হতাশ হয়নি। মূল চ্যালেঞ্জ নদী শাসন কাজ বাস্তবায়নে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। পদ্মা নদীর যে জায়গায় সেতুটি নির্মিত হবে, সেখানে নদী প্রায় ছয় কিলোমিটার প্রশস্ত। মূল সেতুর দৈর্ঘ্য হবে ছয় দশমিক পনের কিলোমিটার। এটি হবে বিশ্বের দ্বিতীয় ও দক্ষিণ এশিয়ার কোনো নদীর ওপর নির্মিত দীর্ঘতম সেতু।

ওবায়দুল কাদের বলেন, পদ্মা সেতু নির্মাণ নিয়ে অনেকে তামাশা করেছে। তামাশার দিন শেষ। পদ্মা সেতু এখন আর স্বপ্ন নয়। এটি বাস্তবায়ন হচ্ছে। আর পদ্মা সেতু নির্মাণের সক্ষমতার জন্য বিশ্বের কাছে আমরা প্রসংশিত হচ্ছি। বীরের জাতি হিসেবে মর্যাদার আসনে বসেছি।

পদ্মা সেতু প্রকল্পে চাকরি দেওয়ার নামে অনেক প্রতারক দোকান খুলে বসে আছে। তাদের কাছ থেকে সাবধান হওয়ার পরামর্শ দিয়ে মন্ত্রী বলেন, এসব বিষয়ে গণমাধ্যমকে এগিয়ে আসতে হবে। সাধারণ মানুষ যেন এসব জায়গায় গিয়ে প্রতারণার শিকার না হয়।

জাগো নিউজ

Leave a Reply