সোমবার চাষী নজরুলের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী

কালজয়ী চলচ্চিত্রকার চাষী নজরুল ইসলামের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আগামীকাল সোমবার। চাষী নজরুল ইসলাম ১৯৪১ সালের ২৩ অক্টোবর বিক্রমপুরস্থ শ্রীনগর থানার সমষপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৬১ সালে সৈয়দ মোহাম্মদ আওয়ালের মাধ্যমে চলচ্চিত্র অঙ্গনে পদার্পণ করেন।

খ্যাতিমান চলচ্চিত্র পরিচালক, অভিনেতা ফতেহ লোহানী ও প্রখ্যাত সাংবাদিক, চলচ্চিত্রকার ওবায়েদ-উল-হকের সহকারী হিসেবে তিনি চলচ্চিত্রের সাথে যুক্ত হন। স্বাধীন বাংলাদেশের এবং মুক্তিযুদ্ধের প্রথম চলচ্চিত্র ‘ওরা ১১ জন’ নির্মাণের মাধ্যমে ১৯৭২ সালে তিনি চলচ্চিত্র পরিচালক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। তিনি একাধিকবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ জীবনে অসংখ্য পুরস্কার অর্জন করেছেন।

চাষী নজরুল ইসলাম চার বার বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির নির্বাচিত সভাপতি ছিলেন। এছাড়াও অসংখ্য সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃত্ব দিয়েছেন। তিনি সর্বাধিক মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক ও সাহিত্য নির্ভর চলচ্চিত্রের নির্মাতা। তার উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রসমূহের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধের ছবি- সংগ্রাম, হাঙ্গর নদী গ্রেনেড, মেঘের পরে মেঘ এবং সাহিত্য নির্ভর চলচ্চিত্র- দেবদাস, শুভদা, চন্দ্রনাথ, রবি ঠাকুরের সুভা, শান্তি, বঙ্কিম চন্দ্রের বিষবৃক্ষ উপন্যাস অবলম্বনে বিরহ ব্যথা, শিল্পী হাসন রাজা প্রমুখ। এ ছাড়াও তিনি দেশবরেণ্য তিন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বকে নিয়ে জীবনভিত্তিক প্রামাণ্য চলচ্চিত্র নির্মাণ করেন।

কালজয়ী চলচ্চিত্রকার চাষী নজরুল ইসলামের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে চাষী নজরুল ফাউন্ডেশনসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে- রঙিন পোস্টার ও পুস্তক প্রকাশ। ১১ জানুয়ারি সকাল ১০টায় মুন্সীগঞ্জ শ্রীনগর থানার সমষপুরে তার কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ, দোয়া ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। সকাল থেকেই তার বাসভবন ৯ কবি জসিম্ উদ্দিন রোডে কোরআনখানি ও দরিদ্র ভোজের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ১২ জানুয়ারি সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাব কনফারেন্স লাউঞ্জে এ উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। ১৩ জানুয়ারি সকালে এফডিসিতে তার স্মরণে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

ঢাকাটাইমস

Leave a Reply