যৌতুকের জন্য নির্যাতনকারী বিজিবি সদস্য গ্রেফতার

জহিরুল ইসলাম জীবন: টঙ্গীবাড়ীতে যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে গুরুতরভাবে নির্যাতনকারী বিজিবি সদস্য জাকির হাওলাদারকে (৩২) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মুন্সীগঞ্জ সদর থানা এলাকা হতে মঙ্গলবার তাকে গ্রেফতার করে জেল-হজতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে টঙ্গীবাড়ী থানা ওসি আলমগীর হোসাইন জানান। এদিকে দির্ঘদিন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি থাকার পর নির্যাতিতা শারমিন আক্তার একমাত্র পুত্র সন্তানকে নিয়ে নিজ পিতৃগৃহে অবস্থান করছেন।

গত ১৯ জানুয়ারী মঙ্গলবার সকাল ৬টায় শারমিন আক্তারকে (২৪) যৌতুকের দাবীতে মেরে গুরুতর আহত করে স্বামী বিজিবি সদস্য জাকির হাওলাদার (৩২) এবং তার পরিবার। প্রথমে তাকে টঙ্গীবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্র হাসপাতালে নেওয়া হলে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কর্তব্যরত ডাক্তার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে।

এ ঘটনায় নির্যাতিতার মা জাহানারা বেগম বাদী হয়ে ৫ জনকে আসামী করে ঘটনার দিন দুপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে টঙ্গীবাড়ী থানায় মামলা দায়ের করেলে ওই বিজিবি সদস্য ও তার পরিবার এলাকা থেকে আতœগোপন করে। পরে মঙ্গলবার তাকে গ্রেফতার করে জেল-হাজতে প্রেরণ করলো পুলিশ। জানাগেছে, উপজেলার পূর্ব আউটশাহী গ্রামের ছায়েব আলি হাওলাদার এর ছেলে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ রাজশাহী অঞ্চলের সিগন্যালম্যান জাকির হাওলাদার এর সাথে একই উপজেলার বলই গ্রামের মৃত আ. মান্নান খান এর মেয়ে শারমিন আক্তার এর গত ১৪ই ফেব্রুয়ারী ২০১৪ ইং তারিখে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর হতেই যৌতুকের জন্য নির্যাতন করে আসছিলো জাকির ও তার পরিবার।

নির্যাতিতার চাচা ইসমাঈল খান জানান, বিয়ের ৬ মাস পর জাকির ও তার মা জাহানারা বেগম যৌতুকে জন্য আমার ভাতিজি শারমিনকে গালমন্দ ও নির্যাতন করলে আমরা ওই সময় ৩ লক্ষ টাকা যৌতুক প্রদান করি। পরে সম্প্রতি আরো ২ লক্ষ টাকা যৌতুক চেয়ে হুমকী দামকি ও মারধর করে আসছিলো জাকির ও তার পরিবার। পরে ঘটনার দিন সকালে তাকে দাসা দিয়ে পিটিয়ে হাত ভেঙ্গে ফেলা হয়। কানের মধ্যে ও মুখে গুরুতর জখম করেছে তার স্বামী ও তার পরিবার। পরে আমরা খবর পেয়ে সকাল ৭টায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসি।

এ ঘটনায় আমরা মামলা দায়ের করলে ওই বিজিবি সদস্য আমাদের মোবাইল ফোনে হুমকী দামকী দিয়ে আসছিলে।

বিক্রমপুর চিত্র

Leave a Reply