জিয়াউর রহমানের শাহাদাতবার্ষিকী পালিত

রাহমান মনি: যথাযোগ্য মর্যাদা ও ধর্মীয় ভাবগাম্বীর্যে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের শাহাদাতবার্ষিকী পালিত হয়েছে জাপানে। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৩৫তম শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে জাপান শাখা বিএনপি এক আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল এবং একইসঙ্গে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করে। ১২ জুন রোববার টোকিওর আরাকাওয়া সিটির হিগশি অকু ফুরেআইকানে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

৩০ মে সাপ্তাহিক কর্মদিবস হওয়ায় নিকটবর্তী কোনো রোববার (হল পাওয়া সাপেক্ষে) সাধারণত প্রবাসীরা বাংলাদেশের জাতীয়, দলীয়, ধর্মীয় বা সামাজিক আচার অনুষ্ঠানের আয়োজনগুলো করে থাকে। সেই হিসেবে ১২ জুন রোববার দলের প্রতিষ্ঠাতার শাহাদাতবার্ষিকীর আয়োজন করা হয়। এদিকে পবিত্র রমজান মাস শুরু হওয়ায় একই সঙ্গে ইফতার মাহফিলেরও আয়োজন করা হয়।

দলীয় কর্মসূচি হলেও একইসঙ্গে ইফতার মাহফিল থাকায় বিএনপি এবং এর অঙ্গ-সংগঠনসমূহের নেতাকর্মীরা ছাড়াও বিপুলসংখ্যক নির্দলীয় বা বিভিন্ন পেশাজীবীর প্রবাসীরা উপস্থিত ছিলেন।

রমজানের গুরুত্ব ও মাহাত্ম্যে এবং সাধারণ প্রবাসীদের উপস্থিতির কথা চিন্তা করে আলোচনা সভা সংক্ষিপ্ত করা হয় এবং রাজনৈতিক বক্তব্য প্রদান থেকে বিরত থাকেন বিএনপি নেতৃবৃন্দ। দলের সাংগঠনিক সম্পাদক নুর খান রনি, সাধারণ সম্পাদক মীর রেজাউল করিম রেজা, সহ-সভাপতি আলমগীর হোসেন মিঠু এবং ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোফাজ্জল হোসেন সবাইকে স্বাগত জানিয়ে এবং উপস্থিতির জন্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে খুব সংক্ষিপ্ত আকারে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন।

পবিত্র রমজানের গুরুত্ব, ফজিলত এবং মানবজীবনে অত্যাবশ্যকীয় পালনের উপর ধর্মীয় বয়ান প্রদান করেন আবুল খায়ের। তিনি জাপানের মতো দেশে থাকলেও পবিত্র রমজান পালনে ধর্মীয় নির্দেশনার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দিক তুলে ধরেন।

ধর্মীয় বয়ান শেষে আবুল খায়ের সুরা ইয়াসিন পাঠ করে বিশেষ মোনাজাতে দোয়া প্রার্থনা করেন। দোয়া প্রার্থনায় শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়া প্রসঙ্গ ছাড়াও বাংলাদেশে অতি সাম্প্রতিক বিশেষ অভিযানের নামে বিরোধী মতের নেতাকর্মীদের হয়রানি ও আটক করা এবং এসব জুলুম থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার আশা কামনা করা হয়।

ইফতার উত্তর মাগরিব নামাজ আদায় এবং তারপর নৈশভোজে আপ্যায়ন করা হয়।

rahmanmoni@gmail.com
সাপ্তাহিক

Leave a Reply