চরকেওয়ারে ঘুরে বেড়াচ্ছে বিরল প্রজাতির অর্ধ শতাধিক হনুমান

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার চরকেওয়ার ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে ও লৌহজং উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বেশ কয়েক মাস ধরে ধরে বিরল প্রজাতির অর্ধ শতাধিক ছোট বড় হনুমান ও বানর ঘুরে বেড়াচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে। সদর উপজেলার চরকেওয়ারেও একটি মা হমুমান ঘুরে বেড়াচ্ছে। এ নিয়ে এলাকায় ছোট ছোট সকলের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে। স্থানীয় পোলাপানরা হনুমানটিকে ইট পাটকেল নিক্ষেপ করার কারনে হনুমানটি বিভিন্ন গ্রামে গিয়ে বড় বড় গাছের ডালে গিয়ে আশ্রয় নিচ্ছে। হঠাৎ করে হনুমান দেখতে পেয়ে হাজার হাজার উৎসুক জনতার ঢল নামে গ্রামগুলোতে। ছোট বড় সব বয়সের লোকজন কৌতুহল বসত হনুমানটিকে এক নজর দেখার জন্য ছুটে যাচ্ছে। তাছাড়া লৌহজং উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের জঙ্গলেও প্রচুর পরিমান মুখ পোঁড়া হনুমানের দেখা মিলেছে। রয়েছে মুখ পোড়া বানরের সংখ্যা প্রায় ৩০ টিরও বেশী । বন বিভাগের তথ্যমতে জেলায় আনুমানিক অর্ধ শতাধিক ছোট বড় হনুমান ও বানর অবস্থান করেছে।

টরকি গ্রামের হুমায়ূন কবির রনি জানান, সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখি আমাদের বাড়ীতে হাজারো মানুষের ভীর। সকলে গাছের দিকে তাকিয়ে আছে কি যেন দেখছেন তারা। পরে গাছের নিকট গিয়ে দেখি এই বিরল প্রজাতির হনুমানটি আমাদের বাড়ীর একটি বড় গাছে আশ্রয় নিয়েছে। এখনও আমাদের বাড়ীতেই আছে। বন ও পশু বিভাগের কর্মকর্তাদের খবর দিয়েছি। হনুমানটি এভাবে থাকলে উসৃংখল পোলাপান এটাকে আঘাত করবে। এই হনুমানটির আরো ২ টা বাচ্চা আছে সেগুলো রয়েছে পাশের গ্রামের জঙ্গলে। এলাকার স্থানীয় পোলাপান হনুমানটিকে ভয় দেখানোর ফলে মা হনুমানটি বাচ্চাদের কাছে যেতে পারছেন। এটা আমাদের জাতীয় সম্পদ এটা রক্ষা করা আমাদের সকলেই দায়িত্ব।

স্থানীয় এক ট্রাক চালক আবুল কাশেম জানান, এই হনুমানগুলো যশোর থেকে আসা কলাভর্তি ট্রাকে করে প্রতিদিনই ২-৩ টা করে মুন্সীগঞ্জ জেলায় আসে। গত সাপ্তাহে আমার ট্রাকের মধ্যে ৬ টা হনুমান এসেছিল। আমি যখন রাত ২ টার পর লৌহজং উপজেলার খিদিরপাড়া এলাকায় এসে ট্রাক থামিয়ে ট্রাকের লাইট মেরামত করতে গাড়ী মাঝ রাস্তায় থামাই। ঠিক তখনই হনুমানগুলো দ্রুত বেরিয়ে পাশের জঙ্গলে লাফিয়ে লাফিয়ে চলে যায়।

মুন্সীগঞ্জ জেলা বন বিভাগের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: আবু তাহের বলেন, এই প্রজাতির হনুমানগুলো লৌহজং উপজেলায় প্রচুর পরিমানে দেখা গেছে। এগুলো যশোর এলাকা থেকে কলা ভর্তি ট্রাকে করে প্রতিনিয়ত ৪-৫ টি করে এই প্রজাতির হনুমান মুন্সীগঞ্জ জেলায় আসছে। যেহেতু এগুলো বাচ্চাসহ এ জেলায় এসেছে আস্তে আস্তে এগুলো বংশ বৃদ্ধি করবে। এদের আরো অনেক বংশধর এ জেলায় আছে। এগুলোকে যেন পাবলিক কোন ধরনের ক্ষতি না করে সেদিকে লক্ষ রাখা হবে।

চমক নিউজ

Leave a Reply