আদালতে স্বীকারোক্তি দিল সৎমা

শিশু সামির হত্যা
সিরাজদীখানের পশ্চিম রাজদিয়া গ্রামে শিশু সামির হোসেন হত্যার ঘটনায় সৎমা সুমাইয়া আক্তার মুন্সীগঞ্জ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। গতকাল রোববার পুলিশ তাকে আদালতে পাঠালে সংশ্লিষ্ট আদালতের বিচারক ১৬৪ ধারায় তার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নেন।

মুন্সীগঞ্জ কোর্ট পরিদর্শক মো. হারুন অর রশীদ সমকালকে জানান, আসামি সুমাইয়া মুন্সীগঞ্জ আমলি আদালত-২-এর বিচারক ও সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. হায়দার আলীর কাছে এ জবানবন্দি দেয়।

সিরাজদীখান থানার ওসি মো. ইয়ারদৌস হাসান জানান, জবানবন্দিতে সে বলেছে, ৮ বছরের ওই শিশুকে মারধর করার পর কান্নাকাটি করলে রাগান্বিত হয়ে গলা টিপে ধরে। ফলে সে শ্বাসরোধে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। আর তা বুঝতে পেরে হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে স্বামীর ঘরের পেছনে থাকা ডোবায় লাশ ফেলে দিয়ে চলে আসে। যাতে সবাই বুঝতে পারে, শিশুটি পানিতে ডুবে মারা গেছে।

গত ১১ জুন হাঁটুপানির একটি ডোবা থেকে শিশু সামির হোসেনের লাশ উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারের সময় শিশুটির পায়ের অংশ পানিতে আর উপরের অংশ পাড়ে ছিল। এ ছাড়া তার চোখে ও গালের নিচে হালকা আঁচড়ের দাগ ছিল। তাই ঘটনাটি রহস্যজনক মনে হলে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। এর ছয় দিন পর গত শনিবার শিশুটির সৎমা সুমাইয়া আক্তারকে আটক করা হয়। এ সময় সে হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার দেখায়।

সমকাল

Leave a Reply