অভিমান জিইয়ে রাখলেন বি. চৌধুরী

প্রায় নয় বছর পর ঘরের ছেলে ঘরে ফিরছেন। সব অভিমানের অবসান হচ্ছে। এজন্য ইফতার মাহফিলে তাকে প্রধান অতিথি করে দাওয়াত কার্ডও বিতরণ করা হয়। কিন্তু সবাইকে হতাশ করে মঙ্গলবার মুন্সিগঞ্জ যাননি সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্পধারার চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী। তবে এদিন তার ছেলে সাবেক সংসদ সদস্য, বিকল্পধারার মুখপাত্র ও যুগ্ম মহাসচিব মাহী বি. চৌধুরী প্রধান অতিথি হিসেবে ইফতার মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন।

বিকল্প যুবধারার উদ্যোগে মুন্সিগঞ্জ শ্রীনগর উপজেলার মজিদপুর দয়হাটা কে সি ইনস্টিটিউশনে এই ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
স্থানীয় নেতাদের ভাষ্য, অধ্যাপক বি. চৌধুরী সম্মতি দেওয়ার পরই তাকে প্রধান অতিথি করে স্থানীয় নেতাকর্মীরা বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও নিজ দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে ইফতার মাহফিলের দাওয়াত কার্ড বিলি করেন।

কিন্তু শেষ মুহূর্তে এসে পারিবারিক কারণে তিনি ইফতার মাহফিলে যোগ দিতে পারেননি। জানা গেছে, মঙ্গলবার রাজধানীতে তার বিয়াই আবদুল মান্নানের ইফতার মাহফিলে যোগ দেন বি. চৌধুরী। মূলত মাহী বি. চৌধুরীর নির্বাচন প্রস্তুতির আলোচনা নিয়েই এই ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছিল।

সেখানে মাহী বি. চৌধুরী বলেন, ‘জোর করে ভালবাসা পাওয়া যায় না। জনগণ চাইলে নির্বাচনে আসব।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের পরিবারের সদস্যরা রাজনীতির সঙ্গে জড়িত এবং তারা আপনাদের সেবায় সব সময় ছিল, আছে এবং থাকবে।’

মাহী বি. চৌধুরী বলেন, ‘মুন্সিগঞ্জ-১ আসনে সাত বছর সংসদ সদস্য থেকে আপনাদের পাশে ছিলাম। জনগণ অবগত আছে বিকল্পধারার উন্নয়ন এই অঞ্চলের মানুষ ভোগ করেছে। আর তারা যোগ্য প্রার্থীকেই আগামী জাতীয় নির্বাচনে ভোট দিবেন।’

শ্রীনগর উপজেলা বিকল্পধারা সভাপতি গাজী শহিদুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় যুবধারা সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান বাচ্চুসহ বিকল্প যুবধারা ধারার নেতারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মুন্সিগঞ্জ-১ আসন থেকে পরাজিত হন অধ্যাপক বি. চৌধুরী। এরপর ক্ষোভে-অভিমানে তিনি নিজ এলাকা ছাড়েন।
বর্ষীয়ান এ রাজনীতিক বিএনপির মনোনয়নে মুন্সিগঞ্জ-১ আসন থেকে পাঁচবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২০০১ সালে তিনি রাষ্ট্রপতি পদে অধিষ্ঠিত হন।

পরিবর্তন

Leave a Reply