লাবনী, আওয়ামীলীগের সুবিধাভোগী নারী, এখন বিএনপিতে!

মুন্সীগঞ্জে আওয়ামীলীগের শীর্ষ নেতাদের নাম ভাঙ্গিয়ে প্রশাসনসহ বিভিন্ন পর্যায়ে সুবিধা ভোগদানকারী বাংলা ভিশনের জেলা প্রতিনিধি সোনিয়া হাবিব লাবনী আনুষ্ঠানিক ভাবে বিএনপিতে যোগদান করেছেন। শনিবার দুপুরে সিরাজদিখান কুসুমপুর মাঠে বিএনপি সদস্য নবায়ন ও সদস্য সংগ্রহ অুনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশারফ হোসেন ও জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল হাইয়ের হাতে ফুলের তোড়া তুলে দিয়ে বিএনপিতে যোগদান করেন। এ নিয়ে জেলা শহরে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে শহরের বিভিন্ন আড্ডাস্থলে লোকজনের মাঝে আলাপ আলোচনা হাস্যরুপে পরিনত হয়েছে। স্থানীয় লোকজনের মন্তব্য কিছুদিন আগেও এই সাংবাদিক জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোহাম্মদ মহিউদ্দিনের অফিসে ঘুরতো আর শহর জুড়ে তাকে মামা পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন শুবিধা ভোগ করত। পৌর মেয়র ফয়সাল বিপ্লবের সাথে বিয়াই বিয়াইন সম্পর্ক পরিচয় দিয়ে ধাপড়িয়ে বেড়িয়েছেন। মেয়র যখন জানলেন তাদের পরিচয় ব্যবহার করে লাবনী বিভিন্ন জায়গায় সুবিধা ভোগ করেন তখন পৌর মেয়র লাবনীকে তার অফিস থেকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে তার বড় ভাই মশিউর রহমান ববি জাতীয় পার্টির নেতা, আরেক ভাই মোঃ পলিং মনির বেলজিয়াম আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক এবং তিনি নিজে বিএনপিতে। এ সব কারনে সুবিধাভোগী হিসাবে সে সবার মাঝে সুপরিচিত।

জেলা যুবদলের সভাপতি তারিক কাশেম খান মুকুল বলেন, লাবনী বিগত সময়ে আওয়ামীলীগ শীর্ষ নেতাদের নাম ভাঙ্গিয়ে দাবরিয়ে বেরাত। সে এখন আবার কিভাবে বিএনপিতে আসল তাতে আমি নিজেও আশ্চার্য।

সিরাজদিখান বিএনপি কর্মী সোলায়মান জানান, সোনিয়া হাবিব লাবনী আসলে কি সত্যি সত্যি বিএনপিতে যোগদান করেছে না উপস্থিত সকলকে দেখানোর জন্য যোগদান করেছে। নাকি আগামীতে বিএনপি ক্ষমতায় আসছে এমন কোন সিগন্যাল পেয়েই সে বিএনপিতে যোগদান করলেন।

এ বিষয়ে বিএনপি জেলা সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান রতন জানান, বিতর্কিত কোন লোককে ১০ টাকা দিয়ে ফরম সংগ্রহ করে সদস্য করা হবে না। সাংবাদিকদের মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পেরেছি। বিষয়টি নিয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে বিতর্কিত লোকদের কোন পদ দেওয়া হবে না।

শীর্ষ সংবাদ

Leave a Reply