পদ্মা নদী: ড্রেজিংয়ে সচল হচ্ছে লৌহজং চ্যানেল

নাব্য সংকট নিরসন করতে আগামী দু-এক দিনের মধ্যে মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের শিমুলিয়া ফেরিঘাট-সংলগ্ন পদ্মা নদীতে ড্রেজিং করতে দুটি ড্রেজার স্থাপন করা হবে। বর্তমানে লৌহজং টার্নিং পয়েন্ট থেকে কাঁঠালবাড়ী ঘাট পর্যন্ত নৌ-চ্যানেলের ছয়টি স্থানে ছয়টি ড্রেজার দিয়ে ড্রেজিং কার্যক্রম চালাচ্ছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী ও বিআইডবি্লউটিএ। ৩২ লাখ ঘনমিটার পলিমাটি অপসারণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটের লৌহজং টার্নিং পয়েন্ট ড্রেজিং করা হচ্ছে। ফলে নাব্য সংকটে জেগে ওঠা ডুবোচরের কারণে বন্ধ হয়ে যাওয়া লৌহজং চ্যানেলটি আবারও সচল হয়ে উঠতে শুরু করেছে। বর্তমানে এ চ্যানেল দিয়ে ওয়ানওয়ে পদ্ধতিতে ফেরি চলাচল করছে। তবে পদ্মায় প্রচণ্ড স্রোত প্রবাহিত হওয়ায় ড্রেজিং কাজ কিছুটা বিঘি্নত হচ্ছে বলে জানা গেছে।

অন্যদিকে ড্রেজিং কার্যক্রমের কারণে সোমবার রাত ১টার দিকে নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এরপর সাড়ে ১১ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর গতকাল মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আবারও শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে ফেরি চলাচল শুরু হয়। দীর্ঘ সময় ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় নৌরুটের উভয়পাড়ে আটকা পড়ে শত শত যানবাহন। ফেরি চলাচল শুরু হলেও পারাপারের অপেক্ষায় কয়েক শতাধিক গাড়ি আটকা পড়ে আছে বলে জানা গেছে।

বিআইডবি্লউটিএর শিমুলিয়া কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী (ড্রেজিং) মো. সুলতানউদ্দিন আহমেদ সমকালকে জানান, লৌহজং টার্নিং পয়েন্টে নাব্য সংকট দেখা দেওয়ায় গত ১০ জুলাই থেকে এই চ্যানেলটি দিয়ে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে। তাই ওইদিন বিকেলেই বিআইডবি্লউটিএ দুই কিলোমিটার ডাউন দিয়ে বিকল্প চ্যানেল চালু করে ফেরি চলাচল সচল রাখা হয়। পরদিন ১১ জুলাই থেকে বন্ধ হয়ে যাওয়া লৌহজং চ্যানেলে নাব্য সংকট নিরসন করতে ড্রেজিংয়ের কাজ শুরু করা হয়। এরপর থেকে বিআইডবি্লউটিএর পাঁচ ও বাংলাদেশ নৌবাহিনীর একটি নিয়ে মোট ছয়টি ড্রেজার দিয়ে লৌহজং টার্নিং পয়েন্ট থেকে কাঁঠালবাড়ী ঘাট পর্যন্ত নৌ-চ্যানেলের ছয়টি স্থানে ড্রেজিং কাজ অব্যাহত রয়েছে। তিনি জানান, পাহাড়ি ঢলের পানির সঙ্গে আসা পলি মাটি জড়ো হয়ে একাধিক ডুবোচর জেগে ওঠায় নাব্য সংকট দেখা দেয়। সেই সঙ্গে পদ্মা সেতুর পাইলিং কাজের ফলে নাব্য সংকট আরও জটিল রূপ ধারণ করে। তাই ছয়টি ড্রেজার দিয়ে ২৮ দিন ধরে ড্রেজিং অব্যাহত রেখে পলিমাটি অপসারণ করা হলেও নতুন নতুন স্থানে ছোট ছোট ডুবোচরের পাশাপাশি নাব্য সংকটের সন্ধান মিলছে।

বিআইডবি্লউটিএর ড্রেজিং বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সুলতানউদ্দিন আহমেদ আরও জানান, এ কারণে আগামী দু-এক দিনের মধ্যে শিমুলিয়া ফেরিঘাট-সংলগ্ন মূল পদ্মায়ও ড্রেজিং করতে আরও দুটি ড্রেজার যুক্ত করা হবে। আর এ নিয়ে ড্রেজারের সংখ্যা দাঁড়াবে আটটি। লৌহজংয়ের শিমুলিয়া ঘাট-সংলগ্ন এলাকায়ও সৃষ্টি হওয়া নাব্য সংকট দ্রুত ড্রেজিং করা না হলে ঘাটে ফেরি নোঙর করতে বা পেঁৗছতে মারাত্মক বিঘি্নত হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

বিআইডবি্লউটিসির শিমুলিয়া কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক মো. গিয়াসউদ্দিন পাটোয়ারী সমকালকে জানান, ড্রেজিংয়ের কারণে সোমবার রাত ১টার পর থেকে নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে। এতে সাড়ে ১১ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর গতকাল মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টা থেকে আবারও ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে।

সমকাল

Leave a Reply