দুই নারী হত্যাকান্ডে ৩ কারণ শনাক্ত

রিমান্ড শেষে আসামিরা জেলহাজতে
মুন্সীগঞ্জ শহরের ভিটি শিলমন্দি এলাকার বারেক লেংটার মাজারে দুই নারী হত্যা মামলায় গ্রেফতার খাদেম মাসুদ কোতোয়াল ও বাবু সরকারকে দুই দফা রিমান্ড শেষে গতকাল সোমবার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার কারণ হিসেবে তিনটি কারণ শনাক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে মাজারের সম্পত্তি ও যৌন কার্যক্রম- এ দুটি কারণের সঙ্গে আরও একটি ‘কারণ’ রয়েছে বলে আসামিদের কাছ থেকে জানতে পেরেছে পুলিশ। তবে ওই কারণটি তদন্তের স্বার্থে আপাতত গোপন রাখা হচ্ছে বলে এক পুলিশ কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

সদর থানার ওসি (তদন্ত) মঞ্জুর মোর্শেদ জানান, ঘটনাস্থলে জব্দ করা আলামতে সম্পৃক্ততার বিষয়টি পুলিশ নিশ্চিত হয়ে খাদেম মাসুদ কোতোয়াল ও মাদক বিক্রেতা বাবু সরকারকে গ্রেফতার করে। এরপর দুই আসামিকে ১৪ সেপ্টেম্বর আদালতে পাঠিয়ে ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। ১৭ সেপ্টেম্বর শুনানি শেষে মুন্সীগঞ্জ আমলি আদালত-১-এর বিচারক দুই আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে দু’দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। তিনি আরও জানান, পরবর্তী সময়ে আরও অধিকতর তদন্তের লক্ষ্যে ওই দুই আসামিকে দ্বিতীয় দফায় আরও দু’দিনের রিমান্ডে আনার পর গতকাল সোমবার আসামি খাদেম মাসুদ ও বাবুকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়। অপর আসামি রাজনকে গ্রেফতারের পর পাঁচ দিনের রিমান্ডের আবেদন এখন শুনানি পর্যায়ে রয়েছে।

গত ১২ সেপ্টেম্বর রাতে শহরের ভিটি শিলমন্দি এলাকায় বারেক লেংটার মাজারের ভেতরে খাদেম আমেনা বেগম ও ভক্ত তাইজুন খাতুনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলা কেটে ও শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়। পরদিন ১৩ সেপ্টেম্বর পুলিশ দুই নারীর লাশ উদ্ধার করে। এ সময় খাদেম মাসুদ ও বাবুকে এবং পৃথক অভিযানে রাজন নামের অপর এক আসামিকে গ্রেফতার করা হয়।

সমকাল

Leave a Reply