হত্যাকারীর সন্তান পালন করছেন নারী কারারক্ষী

মঈনউদ্দিন সুমন: মুন্সীগঞ্জ জেলা কারাগারে হত্যা মামলার আসামি সুমাইয়ার (২০) ছেলেসন্তানের দেখভাল করছেন নারী কারারক্ষী মোসাম্মৎ পিস্তা বেগম। পুরো হাসপাতালে শিশুটিকে কোলে নিয়ে তাঁকে পায়চারি করতে দেখা গেছে।

শিশুটির যত্নে যাতে অবহেলা না হয়, সে জন্য বিশেষ নজরদারি রয়েছে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের।

মুন্সীগঞ্জ জেলা কারাগারের জেলার ফরিদ উদ্দিন রুবেল জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে প্রসব বেদনা ওঠে সুমাইয়ার। পরে তাঁকে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে অস্ত্রোপচার (সিজারিয়ান) করা হয়। এ সময় তিনি একটি ছেলেসন্তান জন্ম দেন। এই খবর পেয়ে মুন্সীগঞ্জ জেলা কারাগারে মিষ্টি বিতরণ করা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘আমাদের চারজন কারারক্ষী বিশেষ নজরদারিতে রয়েছে। শিশুটি দেখার জন্য দুজন মহিলা পুলিশ রয়েছেন।’

সুমাইয়া তাঁর স্বামী আরিফ হোসেনের প্রথম স্ত্রীর সন্তান মো. ইয়াসিন (৭) হত্যা মামলার একমাত্র আসামি। ছয় মাস আগে পুলিশের হাতে সেই হত্যা মামলায় পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন সুমাইয়া। পরে আদালতে ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন সৎমা সুমাইয়া। গ্রেপ্তার হওয়ার সময় সুমাইয়া তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন।

চলতি বছরের মে মাসের দিকে জেলার সিরাজদিখানের বয়রাগাদি গ্রামে শিশু ইয়াসিনকে হত্যা করা হয়। পরে পুকুরের কচুরিপানার নিচ থেকে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।

ওই ঘটনায় পুলিশ সন্দেহভাজন হিসেবে দ্বিতীয় স্ত্রী সুমাইয়াকে আটক করে। পরে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আদালতে ১৬৪ ধারায় হত্যার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন সুমাইয়া। পরে ইয়াসিনের বাবা আরিফ হোসেন বাদী হয়ে হত্যা মামলা করেন।

এনটিভি

Leave a Reply