সিরাজদিখানে ভেঙ্গে পরা বেইলি ব্রীজ সংস্কার!

জসীম উদ্দীন দেওয়ান : পাথরবাহী ট্রাক নিয়ে ভেঙ্গে পরা রশুনিয়ার বেইলি ব্রীজটি সংস্কার না করে, বালু দিয়ে রশুনিয়া খালের চ্যানেল ভরাট করে রাস্তা নির্মাণ করায় দুশ্চিন্তায় পরেছে এই অঞ্চলের বাসিন্দারা। বিশেষ করে ফসলের জমি ডুবে আর্থিক ক্ষতির আশঙ্কার কথা জানান, এখানকার কৃষিজীবি মানুষ। তবে বর্ষা শুরু হবার আগেই নির্মানাধীন সেতু প্রস্তত করে বালু সরিয়ে খালের পানি প্রবাহ নিশ্চিত করার কথা জানালেন উপজেলা চেয়ারম্যান, সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলী।

মঙ্গলবার ভোর সাড়ে চারটায় সিলেট থেকে টংগিবাড়ি গামী অতিরিক্ত পাথর বোঝাই ট্রাক নিয়ে ভেঙ্গে পরা রশুনিয়া বেইলি ব্রীজটি চার দিনেও সংস্কার হয়নি। পানিতে ডুকে থাকা ট্রাকটির মতো চারদিন ধরে পরে আছে ভাঙ্গা ব্রীজটি। তাই গাড়িতে চলে সরাসরি গন্তব্যে পৌঁছা মানুষগুলো পরেছে বিপাকে।

বেইলি ব্রীজটি সংস্কারের চিন্তা নেই কর্তৃপক্ষের, বালু দিয়ে খালটি ভরাট করে দ্রুত রাস্তা নির্মানের কাজ চলছে এখানে। খাল ভরাট করে রাস্তা নির্মাণের ফলে দুশ্চিন্তায় পরেছে এই অঞ্চলের বাসিন্দা ও কৃষকরা। বানিন্দাদের দাবি, বর্ষা মৌসুমে নৌকা ব্যবহার করে তাদের বিভিন্ন কাজ করতে হয়, খালটি বন্ধ হয়ে গেলে নানান সমস্যায় পরতে হবে তাদেরকে। আর কৃষিজীবিরা বলেন, খালটি বন্ধ হয়ে গেলে এক পাশের পানি সরতে পারবেনা, ফলে শত শত একর জমির ফসল নষ্ট হয়ে আর্থিকভাবে তাদের নি:শ্ব হয়ে পরার শঙ্কায় পরেছে তাঁরা।

ভেঙ্গে পরা বেইলি ব্রীজের পাশে নির্মানাধীন পি সি গার্ডার ব্রীজটি আগামী বর্ষার আগেই প্রস্তুত হয়ে যাবে। আর তখনই বালু দিয়ে তৈরী রাস্তার বালু সরিয়ে খালটি খুলে দেয়া হবে বলে জানান, সিরাজদিখান উপজেলা চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন আহমেত এবং সড়ক ও জনপদের সংশ্লিষ্ট উপ প্রকৌশলী সৈয়দ আলম।

বর্ষা মৌসুমে নৌকায় চলাচলে সুবিধা পেতে এবং এই অঞ্চলের শত শত একর ফসলের জমি বাঁচাতে আগামী বর্ষার আগেই সেতুটি নির্মাণ করে, অস্থায়ী সড়কটির বালু সড়িয়ে নিয়ে খাল সচল করার দাবি এলাকাবাসীর।

Leave a Reply