মুন্সীগঞ্জ মুক্ত দিবস পালিত

মুন্সীগঞ্জ হানাদারমুক্ত দিবস উপলক্ষে সোমবার শহরে বিজয় শোভাযাত্রা বের হয়। এতে বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ সর্বস্তরের মানুষ অংশ নেয়। শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

পরে শহরের মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনের পাশের প্রধান সড়কে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে জেলা প্রশাসক ও দায়িত্বপ্রাপ্ত জেলা কমান্ডার সায়লা ফারজানা সভাপতিত্ব করেন। প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন যুদ্ধকালীন ঢাকা বিভাগীয় বিএলএফ কমান্ডার ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ মো. মহিউদ্দিন। মুখ্য আলোচক ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি ও বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সংসদের সাবেক হুইপ সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি এমপি, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম পিপিএম, সিভিল সার্জন ডা. হাবিবুর রহমান, সরকাররি হরগঙ্গা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মীর মাহফুজুল হক, মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার চেয়ারম্যান ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদের নির্বাচিত সাবেক জেলা কমান্ডার আনিস-উজ-জামান।

আলোচনায় অংশ নেন মুন্সীগঞ্জ পৌর মেয়র হাজী ফয়সাল বিপ্লব, প্রেসিডেন্ট প্রফেসর ড. ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদ রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মেজর গাজী মো. তাওহীদুজ্জামান, যুদ্ধকালীন কমান্ডার মোহাম্মদ হোসেন বাবুল, যুদ্ধকালীন কমান্ডার অবসপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার কাজী আনোয়ার হোসেন, সাবেক জেলা ডেপুটি কমান্ডার আলী আহম্মেদ বাচ্চু, মুন্সীগঞ্জ সদরের ভারপ্রাপ্ত ইউএনও মুন্তাসির জাহান, পিপি অ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন, রফিকুল ইসলাম বীর প্রতীক, মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার সাবেক কমান্ডার এম এ কাদের মোল্লা, শ্রীনগর উপজেলার সাবেক কমান্ডার গাজী সামছুদ্দিন, লৌহজং উপজেলার সাবেক কমান্ডার মাহবুবউল আলম, টঙ্গীবাড়ি উপজেলার সাবেক কমান্ডার সামসুল হক, গজারিয়া উপজেলার সাবেক কমান্ডার নজরুল ইসলাম, সিরাজদিখান উপজেলার সাবেক কমান্ডার আব্দুল মতিন হালদার, দৈনিক সভ্যতার আলো সম্পাদক মীর নাসিরউদ্দিন উজ্জ্বল ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সভাপতি জালালউদ্দিন রুমী রাজন।

সঞ্চালনা করেন সাবেক সাংগঠনিক কমান্ডার মো. জামাল হোসেন, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি মতিউল ইসলাম হিরু ও সদর উপজেলার সাবেক ডেপুটি কমান্ডার শহীদ হোসেন।

এর আগে মুক্তিযোদ্ধা কমপেক্স ভবন সংলগ্ন বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে কর্মসূচীর উদ্বোধন করা হয়।

বাসস

Leave a Reply