মুন্সীগঞ্জে প্রশ্নপত্র ফাঁস, গ্রেপ্তারকৃত ৯ জনের রিমান্ড শুনানি আজ

মোজাম্মেল হোসেন সজল: মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার ১১৯টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রশ্নপত্রের ফাঁসের ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত ৯ জনকে ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যায় মুন্সীগঞ্জ সদর থানার পুলিশ তাদের আদালতে পাঠায়। মুন্সীগঞ্জ ১নং আমলী আদালতের বিচারক মো. হায়দার আলী আজ (বৃহস্পতিবার) আসামিদের রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য করে তাদের কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- কাজিম (২২), রফিকুল (২১), রতন মিয়া (২৪), আব্দুর রহিম (২১), কামরুল হাসান (২২), মোস্তাফিজুর রহমান (২০), মো. রিয়াজ (২০), শাখাওয়াত হোসেন (২২) ও জাকির হোসেন (২৫)।

গ্রেপ্তারকৃতদের বাড়ি নেত্রকোনা, পটুয়াখালী, জামালপুর ও রংপুর জেলায়। মঙ্গলবার রাত থেকে বুধবার সকাল পর্যন্ত শহরের দক্ষিণ ইসলামপুর, উত্তর ইসলাম ও খালইস্ট এলাকার বিভিন্ন মেস থেকে পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারকৃতরা মুন্সীগঞ্জ সরকারি হরগঙ্গা কলেজের বিভিন্ন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় বুধবার বিকেলে মুন্সীগঞ্জ শহরের ইদ্রাকপুর ১নং মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সদর উপজেলা পরীক্ষা পরিচালনা এবং সমন্বয় কমিটির সদস্য মো. সাহাবউদ্দিন বাদী হয়ে মুন্সীগঞ্জ সদর থানায় আইসিটি আইনে মামলা করেছেন।

মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ওসি তদন্ত মো. মঞ্জুর মোর্শেদ জানান, জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানার নির্দেশে তিনজন ম্যাজিস্ট্রেটসহ পুলিশ শহরের বিভিন্ন মেসে অভিযান চালিয়ে মোবাইল ফোনে রাখা পরীক্ষার প্রশ্নপত্রসহ ৯ জনকে গ্রেপ্তার করে।

তিনি আরও জানান, প্রাথমিকভাবে গ্রেপ্তারকৃতদের ব্যবহৃত মোবাইল ফোন পর্যবেক্ষণ করে প্রশ্নপত্রের নমুনা এবং বিতরণের প্রমাণ পাওয়া গেছে। এইসব প্রশ্নপত্র অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরণ করা হয়। এতে মঙ্গলবার দ্বিতীয় থেকে চতুর্থ শ্রেণি পর্যন্ত মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার ১১৯টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরীক্ষা স্থগিত ও প্রণীত প্রশ্ন বাতিল করা হয়েছে। পরবর্তীতে নতুন প্রশ্নপত্র তৈরি করে নতুন সময়সূচি দিয়ে পরীক্ষার দিনক্ষণ নির্ধারণ করা হবে।

এদিকে, পরীক্ষা স্থগিত করায় শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও কর্তৃপক্ষ আর্থিক এবং মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।

পূর্ব পশ্চিম

Leave a Reply