টঙ্গিবাড়ীতে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৫!

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ী উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা চলাকালে গতকাল সোমবার বিকেলে সভাস্থলের বাইরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছে। সংঘর্ষে জড়িত দু’পক্ষই ছাত্রলীগের নেতাকর্মী বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। তবে আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ দাবি করেছেন, সংঘর্ষের ঘটনায় ছাত্রলীগ জড়িত নয়।

স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতা জানান, সোমবার টঙ্গিবাড়ী উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনের অভ্যন্তরে মুন্সীগঞ্জ-২ আসনের এমপি সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ মো. লুৎফর রহমানের উপস্থিতিতে উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি জগলুল হালদার ভুতুর সভাপতিত্বে উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা হয়। এ সভা চলাকালে মিলনায়তনের বাইরে যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা অবস্থান করছিলেন। একপর্যায়ে বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে মিলনায়তনের বাইরে জেলা ছাত্রলীগের উপ-প্রচার সম্পাদক দীপু মাঝির পক্ষ ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান খান পক্ষের নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। এ সময় দু’পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় ঘটনাস্থল ও আশপাশের এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। তবে কি কারণে সংঘর্ষের সূত্রপাত বর্ধিত সভায় মিলনায়তনের অভ্যন্তরে থাকায় তা জানতে পারেননি ওই নেতা।

তবে টঙ্গিবাড়ী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান খান জানান, সংঘর্ষের ঘটনায় তার কোনো সম্পৃক্ততা নেই। ঘটনার সময় তিনি আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় ভেতরে ছিলেন। এ প্রসঙ্গে জেলা ছাত্রলীগের উপ-প্রচার সম্পাদক দীপু মাঝির বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

টঙ্গিবাড়ী থানার ওসি মো. ইয়ারদৌস হাসান জানান, বিরোধের জের ধরে স্থানীয় মাঝি গোষ্ঠী ও খান গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। এ ঘটনায় থানায় কোনো অভিযোগ করা হয়নি।

সমকাল

Leave a Reply