পৃথিবীর বুকে ভিক্ষুকের জাতি হিসাবে পরিচিত থাকব না

জেলায় স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একটি সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে এগুচ্ছে, দুটি রূপকল্প আছে-২০২১ সাল ও ২০৪১ সাল। ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে উন্নত হবে। আমরা আর পৃথিবীর বুকে ভিক্ষুকের জাতি হিসাবে পরিচিত থাকব না। আমরা প্রয়োজনে পৃথিবীর অন্যান্য দেশ যারা বিপদে থাকে, না খেয়ে থাকে তাদের সহায়তা করতে পারব। এরকম একটি পরিস্থিতিতে আমরা স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী পালন করব। এটাই জাতির জনকের কন্যা শেখ হাসিনার রূপকল্প। ২০৪১ সালে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশ থেকে গ্র্যাজুয়েট হয়ে উন্নত বিশ্বের সঙ্গে এক কাতারে যাবে। কানাডা, ইউরোপ, আমেরিকার মতো দেশের কাতারে আমরা যাব। এই রূপকল্প নিয়ে অনেকেই সন্দেহ করে, অনেকেই হাসি ঠাট্টা করেছে।

মুন্সীগঞ্জ জেলার টংগীবাড়ি উপজেলার বড়লিয়া এলাকার মুন্সীগঞ্জ ইন্সটিটিউট অব মেরিন টেকনোলজির উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে তিনি নামফলক উন্মোচন করে প্রতিষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন করেন।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ অলরেডি মধ্যম আয়ের দেশে যাওয়ার জন্য তিনটি ধাপ অর্জন করেছে এবং পৃথিবীর কোনো দেশ এই তিনটি ধাপ অর্জন করেনি বেশির ভাগই অর্জন করেছে দুইটি ধাপ। মধ্যম আয়ের দেশে যাওয়ার জন্য মাথাপিছু আয় ১২৭০ ডলার এবং বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় বর্তমানে ১৬১০ ডলার। প্রতিটি সূচকে আমরা এগিয়ে আছি।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ নির্বাচনে আসলে শতকরা ৮ ভাগ ভোট পাবেন। তাকে বলি, পাগলে কিনা কিয় ছাগিলে কিনা খায়। কে কি বলল তা নিয়ে থাকতে রাজী না, আমরা চাই বাংলাদেশ সারা বিশ্বে মাথা উচু করে দাঁড়াক। বাংলাদেশ এখন আর তলাবিহীন ঝুড়ি নয়, বাংলাদেশের ঝুড়ি এখন উপড়ে পড়ছে। এই সালের ডিসেম্বরের মধ্যেই জাতি আরেকটি সরকার পাবে। এই নির্বাচনে যদি ভুল করি, আমরা যদি আবোলতাবোল কথা শুনে অন্য দলের পক্ষে যাই তাহলে আমরা পিছিয়ে যাব।

জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানার সভাপতিত্বে এ সময় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মুন্সীগঞ্জ ২ আসনের সাংসদ অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সাংসদ অ্যাড. মৃণাল কান্তি দাস, জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুর্যোস’র মহাপরিচালক মো. সেলিম রেজা, মুন্সীগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম পিপিএম, মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ লুৎফর রহমান প্রমুখ।

৪৭.৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রতিষ্ঠানে দুই বিভাগে চার বছরের কোর্সে আবাসিক সুবিধাসহ প্রতি সেমিস্টারে ৯৬ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হলে আট সেমিস্টারে ৮০০ জন ভর্তি হওয়ার সুযোগ থাকছে। ইতিমধ্যেই ১২ জন নারী শিক্ষার্থীসহ ২৫৭ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হয়েছে। ডিপ্লোমা ইন মেরিন টেকনোলজি এবং ডিপ্লোমা ইন মেরিন শিপিং বিল্ডিং ইঞ্জিনিয়ারিং নামে দুইটি কোর্স চালু আছে। ২০১৩ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। প্রায় চার বছর পর আনুষ্ঠানিকভাবে এর উদ্বোধন করা হয়েছে। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় এবং জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো বাস্তবায়ন করেন। এই প্রকল্পের আওতায় বাংলাদেশে ৫টি ইন্সটিটিউট প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে।

সোনালীনিউজ/

Leave a Reply