মোল্লাকান্দিতে আলু পুড়িয়ে প্রতিপক্ষকে ফাঁসানো পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

মুন্সীগঞ্জের চরাঞ্চলের মোল্লাকান্দিতে জমিতে স্তুপ করে রাখা আলু আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়ার গঠনায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ উঠেছে। পক্ষান্তরে প্রতিপক্ষকে ফাঁসিয়ে দেয়ার জন্য ঘটনা সাজানো হয়েছে বলে দাবি উঠেছে।

বৃহস্পতিবার রাতে মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের মধ্য মাকহাটি গ্রামের সোবহান মল্লিকের জমিতে এই ঘটনা ঘটে। ওদিকে, বৃহস্পতিবার রাতে একই গ্রামের সিরাজ সিকদারের স্তুপ করে রাখা প্রায় ৫শ’ মণ আলুতে লবন ছিটিয়ে নষ্ট করে দেয়া হয়েছে। মধ্য মাকহাটি গ্রামের আবদুল হাই মল্লিকের ছেলে সোবহান মল্লিক জানান, তিনি গত দুইদিন ধরে আলু উত্তোলন করছেন। সেই আলু জমিতেই স্তুপ করে রেখেছেন।

বৃহস্পতিবার রাতের যে কোন সময় পূর্ব শক্রুতার জের ধরে তার স্তুপ করে রাখা ৩৫০ মণ আলু আগুন দিয়ে পুড়িয়ে ফেলা হয়। এই ঘটনার জন্য প্রতিপক্ষের মফিজুল হক মল্লিককে তিনি দায়ি করেন।

মধ্য মাকহাটি গ্রামের মফিজুল হক মল্লিক জানান, জমিজমা নিয়ে সোবহান মল্লিকের সঙ্গে তার মামলা চলছে। আমি এবং আমার পরিবারের কোন সদস্য এলাকায় থাকি না। আমাকে ও এলাকার দফাদার বিশা মোল্লাকে ফাঁসানোর জন্য এই ঘটনা সাজানো হয়েছে। আমি এর সুষ্ঠু তদন্ত চাই। সোবহানের ভাই কাদির মল্লিকের ছেলে অপু মল্লিক আমার পরিত্যক্ত বাড়িতে অবস্থান নিয়ে নানা অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটাচ্ছে। ঘটনাটি পুলিশকে জানিয়ে রাখা হয়েছে।

এই বিষয়ে মুন্সীগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আলমগীর হোসাইন অবহিত নন বলে জানান।

আদালতের নিষেধাজ্ঞা সত্বেও সোবহান মল্লিক গং মফিজ মল্লিকের জমিতে ঘর উত্তোলন করে। এ ঘটনায় সোবহান মল্লিক গংকে বিবাদী করে মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম আজিজ মল্লিকের ভাই মফিজুল হক মল্লিক বাদী হয়ে গত ১লা মার্চ মুন্সীগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পিটিশন মামলা (পিটিশন মামলা নং ৪৮/২০১৮) করেন।

অবজারভার

Leave a Reply