মিরকাদিম পৌরসভায় ব্যাপক উৎসাহ উদ্দিপনার মধ্য দিয়ে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন

কামাল আহমেদ: মিরকাদিম পৌর সভার আয়োজনে রিকাবী বাজার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে দিনব্যাপী অনুষ্ঠান মালার আয়োজন করা হয়। বিকালে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে স্বাধীনতা দিবস আলোচনা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। মিরকাদিম পৌর সভার মেয়র ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি শহিদুল ইসলাম শাহীন এর সভাপতিত্বে এবং বিশিষ্ঠ সামাজিক সংগঠক শিক্ষানুরাগী মাসুদ ফকরী খোকনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের প্রধান আলোচক বীর মুক্তিযোদ্ধা কামাল উদ্দিন আহম্মেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক, মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ। হাজার হাজার ছাত্র-ছাত্রী ও দর্শকরা উৎসব আনন্দের মধ্য দিয়ে, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে নৃত্য, গান ও কবিতা আবৃতি প্রাণভরে উপভোগ করেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকেন মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ তথ্য ও গবেষনা বিষয় সম্পাদক সালাউদ্দিন আহম্মেদ, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, কাউন্সিলারবৃন্দ এবং সদর থানা কৃষকলীগ সভাপতি পিয়ার হোসেন, পৌর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ নাছির উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু তাহের, প্রচার সম্পাদক এবং প্রতিটি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকবৃন্দ ও পৌর আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, কৃষকলীগ নেতৃবৃন্দ। স্বাধীনতা দিবস আলোচনায় অংশ নিয়ে স্বাধীনতার ইতিহাস তুলে ধরেন, কৃষকলীগ নেতা পিয়ার হোসেন, পৌর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মো: নাছির উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু তাহের, ৪নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি কাউন্সিলার আ: মজিদ, ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি মোঃ বাদল। প্রধান আলোচক বীর মুক্তিযোদ্ধা কামাল উদ্দিন আহম্মেদ স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন দিক উল্লেখপূর্বক বক্তব্য প্রদান করেন। তিনি বলেন মেয়র শহিদুল ইসলাম শাহীনের নেতৃত্বে পৌর আওয়ামী লীগ আজ সু-সংগঠিত, আগামী জাতীয় নির্বাচরে জননেত্রী শেখ হাসিনা যাকে মনোনয়ন দিবেন তাকে বিজয়ী করতে মেয়র শহিদুল ইসলাম শাহীন অনন্য ভূমিকা পালন করবে বলে তিনি আশাবাদি। সভাপতির বক্তব্যে মেয়র শহিদুল ইসলাম শাহীন বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা মিরকাদিম পৌর সভার মেয়র পদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে আমাকে তৃণমুলের সিদ্ধান্তমতে আমাকে মনোনয়ন দেন। আমি নৌকা মার্কা প্রতীকে নির্বাচন করি। পৌর সভার অনেক আওয়ামী লীগ নেতৃস্থানীয় নেতা আমার নৌকা মার্কার পক্ষে নির্বাচন না করে বিরোধী প্রার্থীর মোবাইল ফোন ও ধানের শীষের নির্বাচন করেছে। আমি মনে করি তারা আমাকে নয় বঙ্গবন্ধুকে, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে, বঙ্গঁবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে সর্বোপরী নৌকা মার্কার প্রতি অসম্মান প্রদর্শন করছে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হলে আমি মনে করি আওয়ামী লীগের জঞ্জাল দূর হতো। এরপরও আমি বলবো, আমরা প্রাণপ্রিয় নেত্রী, বিশ্বইতিহাসের সফল প্রধামন্ত্রী, মানবতার নেত্রী, উন্নয়নের মানসকন্যা, দেশরত্ন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা যার হাতে নৌকাকে তুলে দিবেন তাকে জয়ী করতে সর্বাত্ত্বকভাবে কাজ করে যাব, অনেকে বেঈমানী করছে, আমি বেঈমানী নই, ইনশাল্লাহ আগামী নির্বাচনে ও জননেত্রী শেখ হাসিনা নেতৃত্বে নৌকা বিজয় অর্জন করবে। শেখ হাসিনার নেতৃত্ত্বাধীন সরকার দেশ পরিচালনা করবে।

তিনি স্বাধীনতা দিবস আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের সফলতার জন্য সকলকে ধন্যবাদ জানান, মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা গান এর সাথে মনোরম নৃত্য পরিবেশন করায় তিনি নৃত্য শিল্পীদেরকে ১০টি শাড়ী উপহার দেন।

Leave a Reply