শ্রীনগর বাজারের ছ্যাঁকা রুটি আজও কালের সাক্ষী

মুন্সীগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী শ্রীনগর বাজারের ছ্যাঁকা রুটির কথা আজও ভুলে যায়নি সাধারণ মানুষ। উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম-গঞ্জের মানুষের কাছে খুব পরিচিত এই সু-স্বাদু রুটি। এখনও বেশ কদর রয়েছে এই রুটির। আগের তুলনায় ছ্যাকা রুটির দোকানের সংখ্যা কম হলেও ব্যপক চাহিদা রয়েছে। বর্তমানে শ্রীনগর বাজারে ৪টি ছ্যাঁকা রুটির দোকান রয়েছে। প্রতিদিন সকাল ৮ টা থেকে বেলা ৩ টা পর্যন্ত চলে ছ্যকা রুটির দোকান। অন্য সাধারণ রুটির চাইতে অনেকটা বড় আকারের এই রুটি। ময়দা, তেল, পানি ও লবণ দিয়ে তৈরি হয় রুটি। প্রতিটি রুটি প্রায় ১৬০ গ্রামের মতো ওজন।

প্রতিটি রুটি ১০ টাকা করে বিক্রি হয়ে থাকে। আর কেজি হিসেবে ১ কেজির দাম নেয়া হয় ৬০ টাকা। ১ কেজিতে ৫ থেকে ৬টি রুটি পাওয়া যায়। বেশিরভাগ লোক এই রুটি বিভিন্ন ধরনের মিষ্টি, সন্দেশ ও চা দিয়ে খেতে ভালবাসে। আবার কেউ কেউ এই রুটি ডাল কিংবা বিভিন্ন ধরনের সবজি দিয়ে খেয়ে থাকেন। সকাল থেকে ৩ টার মধ্যে যে কোন সময় রুটি পাওয়া যায়। এক সময় উপজেলা শ্রীনগর বাজারে পাশে খাল দিয়ে চলত লঞ্চ, স্টিমার, নৌকাসহ নানা ধরনের পণ্যবাহী পরিবহন। আর এসব পরিবহনে ব্যবসায়ীরা ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানের পণ্য সামগ্রী নিয়ে আসতেন শ্রীনগর বাজারে। তখন ঢাকা যেতে সময় লাগত প্রায় ৬/৭ ঘন্টা। পণ্য সামাগ্রী ক্রয় করতে যাওয়ার পথে ব্যবসায়ীসহ সাধারণ মানুষ অধিকংশ সময়ই সঙ্গে করে নিয়ে যেতেন সাধের ছ্যাঁকা রুটি ও মিষ্টি জাতীয় দ্রব্য।

শ্রীনগর বাজারে ছ্যাঁকা রুটির দোকানদার সুনিল (৪৮), বিজয় (৬০) ও সানি (৩০) এর কাছে ছ্যাঁকা রুটি সম্পর্কে জানতে চাইলে তারা জানায়, তাদের পূর্ব-পুরুষেরাও ছ্যাঁকা রুটির ব্যবসা করতেন।

জনকন্ঠ

Leave a Reply