জাপানে শক্তিশালী ভূমিকম্প

হাসিনা বেগম: সাপ্তাহিক কর্মদিবসের শুরুতে শক্তিশালী এক ভূমিকম্প আঘাত হানে দেশটির বাণিজ্যিক রাজধানী খ্যাত দেশটির পশ্চিমাঞ্চল ওসাকা শহরে। আজ ১৮ জুন সোমবার সকাল ৮টায় রিখটার স্কেলে ৬.১ মাত্রার ভুমিকম্প আঘাত হানলে ব্যাপক জান মালের ক্ষয়ক্ষতি হয় । তিন জনের প্রাণহানি এবং দুই শতাধিক আহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে নয় বছরের একটি মেয়ে শিশু রয়েছে । ভূমিকম্পের সময় শিশুটি তার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভেতরে হাঁটছিল। সেখানে দেয়াল ভেঙে তার ওপর পড়লে সে মারা যায়। এনএইচকে বলছে, দেয়াল ভেঙে পড়ে ৮০ বছরের আরেক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া অপর ব্যক্তি নিজের বাসায় বইয়ের শেলফের নিচে চাপা পড়ে নিহত হয়েছেন। সূত্র – গণমাধ্যম ।

তবে, হতাহতদের মধ্যে কোন বাংলাদেশীদের নাম এখনো পর্যন্ত জানা যায়নি ।

জাপান পুলিশ এবং রাষ্ট্রীয় প্রচার মাধ্যম এনএইচকে এবং বিভিন্ন গণমাধ্যম সুত্রে জানা যায় , ভূমিকম্পে ওসাকা ও আশেপাশের শহরগুলিতে বেশ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ভূমিকম্পে কারখানার বিদ্যুতের সংযোগ বন্ধ হয়ে যায়। এ ছাড়া প্রধান পানির সংযোগে বিস্ফোরণ হয়েছে। প্রায় ১ লাখ ৭০ হাজার ভবন বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। স্থানীয় পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলোয় কোনো সমস্যা দেখা যায়নি।

ভুমিকম্পে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটলেও সুনামির কোন সতর্কতা জারি হয়নি। যোগাযোগ ব্যাবস্থা বিশেষ করে রেল যোগাযোগ কিছু সময়ের জন্য বন্ধ হয়ে যায়। ফলে অফিসগামীরা বিপাকে পরে যায়।

জাপানে ২০১১ সালে ৯.১ মাত্রার ভয়াবহ ভূমিকম্প এবং সুনামিতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হলেও ওসাকা শহরে তেমন কোন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। তবে ১৯৯৫ সালে কোবে ভূমিকম্পে ওসাকাতে ব্যাপক প্রভাব পড়ে। প্রায় দুই যুগ পর ওসাকাবাসীদের বড় ধরনের ভূমিকম্পের মুখোমুখি হতে হল।

ভূমিকম্পের পর প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে গণমাধ্যমকে বলেন, ‘সরকার এবং জনগন একত্র হয়ে কাজ করছে। আমাদের প্রথম এবং প্রধান প্রাধান্য জনগণের জীবন রক্ষা করা । তিনি ধৈর্য সহকারে পরিস্থিতি মোকাবেলার উপর গুরত্বারোপ করেন ।

Leave a Reply