মুন্সীগঞ্জের ইয়াবা চালনসহ রুমা গ্রেফতার

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার মুক্তারপুর থেকে হাজার ইয়াবার চালনসহ ৯ মাদক মামলার আসামি রুমানা বেগম রুমাকে (৩৫) র‌্যাব-১১ গ্রেফতার করেছে। সে নতুনগাঁও গ্রামের মাদক বিক্রেতা জাকারিয়া ভাসানীর স্ত্রী। এই অভিযানে নেতৃত্বদানকারী র‌্যারের-১১ (সিপিসি-১) এএসপি মোঃ মহিতুল ইসলাম জানান, শুক্রবার দিবাগত রাতে মুক্তারপুর সেতুর ঢালের এবিসি রেস্টুরেন্টের সামনে থেকে তাকে পাকড়াও করা হয়। দীর্ঘদিন ধরে রুমা এবং তার সাবেক ও বর্তমান স্বামীই মাদক বিক্রির সাথে জড়িত। দেশে মাদকবিরোধী অভিযান শুরুর পর তার স্বামী সৌদি আরবে গা ঢাকা দিয়েছে। তবে রুমা এই ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছিল। তার কাছ থেকে ১০২০ পিস ইয়াবা, ১০ বোতল ফেন্সিডিল ও মাদক বিক্রির ৫শ’ টাকা জব্দ করা হয়। রুমা র‌্যাবের হেফাজতে রয়েছে। এই ঘটনায় মুন্সীগঞ্জ সদর থানায় আজ শনিবার মাদক আইনী মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

র‌্যাব জানায়, রুমা ১৯৯২ সালে শহরের ইদ্রাকপুর ১নং সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় হতে ৫ম শ্রেণি এবং ১৯৯৮ সালে মুন্সীগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় হতে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে এক বিষয়ে অকৃতকার্য হয়। কিন্তু এসএসসি পরীক্ষার দুই মাস আগে নিজের পছন্দে একই গ্রামের আঃ মান্নানকে বিয়ে করে। ২০০০ সালে সে এক কন্যা সন্তানের মা হন। আঃ মান্নান জাল তৈরীর কারখানায় চাকরী করতো। কিছুদিন চাকুরী করার পর ২০০১ সালে চাকুরী ছেড়ে দিয়ে এলাকায় প্রথমে ফেন্সিডিল ও পরবর্তীতে গাজা বিক্রি শুরু করে। ঐ সময় তার স্বামী বিভিন্ন মেয়েদের সাথে অবৈধ সম্পর্কে জড়িত হয়।

এই কারণে রুমা তার স্বামী আঃ মান্নানকে ২০০৪ সালে ডিভোর্স দিয়ে হাসপাতালের ক্লিনার ভিসায় সৌদি আরবে চাকুরী নেয়। পাঁচ বছর সৌদি আরবে চাকুরী করার পর ২০০৯ সালে দেশে ফিরে আসে। দেশে আসার পর তার সাবেক স্বামীর বন্ধু জাকারিয়া ভাসানীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ২০১১ সালে জাকারিয়া ভাসানীকে বিয়ে করে পুনরায় সংসার জীবন শুরু করে। তখন জাকারিয়া ভাসানী ক্রাউন সিমেন্ট কোম্পানীতে চাকুরী করেতো। মুন্সীগঞ্জের এক শিল্পপতি জাকারিয়ার ছোট বেলার বন্ধু ছিল। জাকারিয়া তার অন্যান্য সহকর্মীদের সাথে নিয়ে সেই বন্ধুর ৩২ লাখ টাকা মেরে দেয়। ২০১২ সালে জাকারিয়া ভাসানী সেই টাকার কিছু অংশ দিয়ে তার গ্রামে সেগুন ফার্নিচার নামে ব্যবসা শুরু করে।

পাশপাশি এই ফার্নিচার ব্যবসার আড়ালে জাকারিয়া ভাসানী ইয়াবা ও ফেন্সিডিল বিক্রি শুরু করে। রুমা তার স্বামীর মাদক বিক্রির কাজে জড়িয়ে পরে। রুমা সমান্তবর্তী এলাকা হতে ইয়াবা এনে বাড়ির আশপাশে মাটির নিচে ও বিভিন্ন স্থানে মাদক লুকিয়ে রেখে খুচরা এবং পাইকারী বিক্রি করত। স্বামী জাকারিয়া ভাসানীর বিরুদ্ধে মাদক মামলা থাকায় পুলিশি তৎপরতার কারণে প্রায় এক মাস আগে দেশ ছেড়ে সৌদি আরবে গমন করে। রুমা ইয়াবাসহ বেশ কয়েকবার পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়। রুমা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট সব ক’টি দফতরের তালিকাভুক্ত মাদক বিক্রেতা। রুমা স্থানীয়ভাবে মাদক সমরাজ্ঞী হিসাবে পরিচিত।

জনকন্ঠ

Leave a Reply