মুন্সীগঞ্জে মাদ্রাসার শিক্ষক শেখ আওলাদকে হাঁতুড়ে দিয়ে পিটিয়ে হত্যা

চাচাতো ভাই শেখ তাজুল আটক
জসীম উদ্দীন দেওয়ান: ঘর থেকে ডেকে নিয়ে মাদ্রাসার শিক্ষক শেখ আওলাদ হোসেনকে হাঁতুড়ে দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করে পুকুরে ফেলে রেখে আসে চাচাতো ভাই শেখ তাজুল ইসলাম। এই ঘটনায় তাজুল ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ। পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম পিপিএম জানান, মঙ্গলবার রাত ১০ টার দিকে আওলাদ হোসেনকে নিজ ঘরে ডেকে নিয়ে যায় চাচাতো ভাই তাজুল।

পরে রাত বেশি হলে আওলাদ হোসেনের স্ত্রী স্বামীর খোঁজে গিয়ে দেখে তাজুলের ঘর ফাঁকা। এসময় তিনি তাজুলকে পুকুর থেকে ওঠে আসতে দেখে চিৎকার করলে লোকজন জড়ো হয়ে আওলাদ হোসেনের মৃত্য দেহ পুকুরে পরে থাকতে দেখে। এবং তাজুলকে জনগন আটকে রাখে। ঘটনা স্থলে গিয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে এবং তাজুলকে আটক করে নিয়ে আসে। জায়েদুল আলম আরো জানান, প্রাথমিকভাবে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা যায়, শেখ আওলাদ হোসেন ধামারন মাদ্রাসায় শিক্ষকতার পাশাপাশি মানুষের রোগ বালাই নিরিসনে ঝাড়, ফুঁক দিতো। আর তাঁর চাচাতো ভাই শেখ তাজুল ইসলামও ফকিরি করতো। এতে তাদের মাঝে ব্যবসায়ীক প্রতিদ্ধন্ধীতা সৃষ্টি হয়। এবং এক পর্যায়ে আওলাদ হোসেনকে হত্যা করে তাজুল ইসলাম। ময়না তদন্তের জন্য আওলাদ হোসেন এর মরদেহ মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানান, পুলিশ।

Leave a Reply