বিকল্পধারা থেকে বি চৌধুরী-মান্নান-মাহী বহিষ্কার


দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, মহাসচিব মেজর (অব.) মান্নান ও যুগ্ম মহাসচিব মাহী বি. চৌধুরীকে বহিষ্কার করে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

নুরুল আমীন বেপারীকে সভাপতি ও শাহ আহমদ বাদল নতুন মহাসচিব হয়েছেন।

শুক্রবার (১৯ অক্টোবর) সকাল ১১টায় প্রেসক্লাবের সামনে সাংবাদিকদের এ কথা জানান নুরুল আমীন ও বাদল।

নতুন মহাসচিব শাহ আহমদ বাদল বলেন, সংবাদ সম্মেলনের জন্য আমরা প্রেস ক্লাবের কনফারেন্স রুমে বুকিং দিয়েছিলাম। কিন্তু আমাদের বুকিং বাতিল করা হয়েছে। এজন্য আমরা প্রেস ক্লাবের সামনেই আমাদের নতুন কমিটি ঘোষণা করতে হলো।

‌দলের সূত্রে জানা যায়, বি. চৌধুরীর ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত দলের সিনিয়র সহ সভাপতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক নুরুল আমিন ব্যাপারী কয়েকদিন আগে বারিধারার বাসায় গিয়ে তার সঙ্গে দেখা করেন। এ সময় তিনি বি. চৌধুরীকে ঐক্যপ্রক্রিয়ার সঙ্গে থাকার পরামর্শ দিয়ে বলেন, জাতীয় পর্যায়ে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য মানুষ যা চায় তাই করেন। কিন্তু তার মতামত উপেক্ষিত হওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে বিদ্রোহী অংশের সঙ্গে তিনি যোগাযোগ করেন। পরে তাকেই নতুন কমিটিতে সভাপতি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

প্রসঙ্গত, প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বিএনপির সঙ্গে জড়িত ড. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী ২০০৪ সালে রাষ্ট্রপতি পদ থেকে সরে দাড়াতে বাধ্য হন। এরপর তিনি দলত্যাগ করে বিএনপির আরেক নেতা মেজর (অব.) আব্দুল মান্নানকে নিয়ে গড়ে তোলেন বিকল্পধারা বাংলাদেশ। প্রতীক হিসেবে দলটি বেছে নেয় কুলা। প্রতিষ্ঠার এই ১৪ বছরে বিকল্পধারার কোনো কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়নি। বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদ ও সামাজিক উদারতাবাদের ওপর প্রতিষ্ঠিত এ দলটি তৃণমূলে আজ পর্যন্ত কোনো সাংগঠনিক ভিত্তি গড়ে তুলতে পারেনি।

আশ্চর্যজনক বিষয় হচ্ছে, নিজ দলের নির্বাহী কমিটির সিংহভাগ সদস্য যখন বিদ্রোহী অংশে যোগ দেওয়ার পরিকল্পনা করছে, সেখানে নির্বিকার বি. চৌধুরীসহ দলের অপর দুই শীর্ষনেতা মান্নান ও মাহি। নিজ দলের পুরনো কমীদের ধরে রাখার কোনো উদ্যোগ না নিয়েই বিএনপি বেনতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট ছেড়ে আসা ন্যাপ আর এনডিপিকে নিয়ে নতুন জোট গঠনে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন।

পূর্ব পশ্চিম

Leave a Reply