বঙ্গীয় গ্রন্থ জাদুঘরের জাতীয় কমিটি গঠন

মুন্সিগঞ্জের লৌহজং উপজেলার কনকসার গ্রামে বাংলাদেশের প্রথম বুক মিউজিয়াম— বঙ্গীয় গ্রন্থ জাদুঘরের জাতীয় কমিটি গঠন করা হয়েছে। ২০১৬ সালের মার্চ মাসে এই গ্রন্থ জাদুঘর ও সংলগ্ন স্কলার’স রেস্ট হাউজটি উদ্বোধন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এমপি। অগ্রসর বিক্রমপুর ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত এই প্রতিষ্ঠানে সাহিত্য ও সমাজ গবেষণার সুযোগ থাকবে। বঙ্গীয় গ্রন্থ জাদুঘরে যুক্ত থাকবে আর্কাইভ, প্রকাশনা বিভাগ, সংগ্রহশালা এবং নিজস্ব গবেষণা বিভাগ। প্রতিষ্ঠানটিকে একটি জাতীয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে গত শুক্রবার বিকেল ৪টায় অর্থমন্ত্রী এ এম এ মুহিতের হেয়ার রোডস্থ বাসভবনে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ এম এ মুহিতের সভাপতিতে অনুষ্ঠিত সভায় আলোচনায় অংশ নেন বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান ড. নজরুল ইসলাম, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী, বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও পিকেএসএফ-এর চেয়ারম্যান ড. খলীকুজ্জমান আহমেদ, বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সৈয়দ হাসান ইমাম, রামেন্দু মজুমদার, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. হারুন-অর-রশিদ, এশিয়াটিক সোসাইটির সভাপতি অধ্যাপক মাহফুজা খানম, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. বিশ্বজিত্ ঘোষ, কালের কণ্ঠের সম্পাদক বিশিষ্ট কথা সাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন এবং অগ্রসর বিক্রমপুর ফাউন্ডেশনের সভাপতি নূহ-উল-আলম লেনিন।

সভাপতির বক্তৃতায় এ এম এ মুহিত এই উদ্যোগের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে এটিকে একটি বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

সভায় ৪৭ সদস্যের একটি জাতীয় কমিটি গঠন করা হয়। আবুল মাল আবদুল মুহিতকে সভাপতি এবং নূহ-উল-আলম লেনিনকে নির্বাহী সভাপতি করে গঠিত কমিটি অবিলম্বে একটি গঠনতন্ত্র প্রণয়ন করবে। গঠনতন্ত্র প্রণীত হওয়ার পর কমিটির অন্যান্য কর্মকর্তা নির্বাচন করা হবে।

সভায় একটি গঠনতন্ত্র উপ-কমিটি গঠন করা হয়। এর সভাপতি : আবুল মাল আবদুল মুহিত; নির্বাহী সভাপতি : নূহ-উল-আলম লেনিন।

কমিটির সদস্যবৃন্দ: জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান, সভাপতি, বাংলা একাডেমি; অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ, সভাপতি, বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্র; হাসান আজিজুল হক, রাজশাহী; ড. নজরুল ইসলাম, সাবেক চেয়ারম্যান, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন; প্রফেসর হায়াত মামুদ, সাহিত্যিক; অধ্যাপক কাজী খলিকুজ্জমান, সভাপতি, পিকেএসএফ; প্রফেসর যতীন সরকার, নেত্রকোনা; ড. জ্যোতিপ্রকাশ দত্ত, কথাসাহিত্যিক; সৈয়দ হাসান ইমাম, সংস্কৃতি কর্মী; রামেন্দু মজুমদার, সংস্কৃতি কর্মী; ড. সারোয়ার আলী, ট্রাস্টি মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর; প্রফেসর ড. আবদুল মান্নান, চেয়ারম্যান, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন; অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ, উপাচার্য, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়; প্রফেসর ড. ফারজানা ইসলাম, ভিসি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়; অধ্যাপক ফায়েকুজ্জামান, উপাচার্য, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়; প্রফেসর ড. আনোয়ার হোসেন, উপাচার্য, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়; অধ্যাপক বিশ্বজিত্ ঘোষ, উপাচার্য, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়; মোস্তাফা জব্বার, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী; ড. পূরবী বসু, কথাসাহিত্যিক; অধ্যাপিকা মাহফুজা খানম, সভাপতি, এশিয়াটিক সোসাইটি; অধ্যাপক জাফর ইকবাল, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়; আবদুল মোমেন, জাতিসংঘে বাংলাদেশের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি (সিলেট); সেলিনা হোসেন, কথাসাহিত্যিক, চেয়ারম্যান, শিশু একাডেমি; অধ্যাপক ড. মাহবুবুল হক— চট্টগ্রাম; আবুল মোমেন, লেখক, সাংবাদিক, চট্টগ্রাম; মেজর জেনারেল (অব.) আব্দুর রশিদ, নিরাপত্তা বিশ্লেষক; অধ্যাপক সামাদ, উপ-উপাচার্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়; অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সেলিম, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়; অধ্যাপক আফসার আহমেদ, নাট্যতত্ত্ব বিভাগ, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়; অধ্যাপক সুফী মোস্তাফিজুর রহমান, প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়; প্রফেসর আবুল কাশেম, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়; সোহরাব উদ্দীন আহমেদ সৌরভ, প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়; শফিকুর রহমান বাদশা, সাবেক অধ্যক্ষ, রাজশাহী কলেজ/বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি; স্থপতি রবিউল হুসাইন, কবি; রাশেদা কে চৌধুরী, সাবেক শিক্ষা উপদেষ্টা; তাসমিমা হোসেন, সম্পাদক, দৈনিক ইত্তেফাক; ইমদাদুল হক মিলন, সম্পাদক, কালের কণ্ঠ; আনিসুল হক, লেখক, সাংবাদিক; ফরিদ আহমেদ, সভাপতি, সৃজনশীল প্রকাশনা সমিতি; শাহ এ সারোয়ার, ব্যবস্থাপনা পরিচালক, আইএফআইসি ব্যাংক; দেবপ্রিয় বড়ুয়া, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘ; ডা. শাহাব আহমেদ, কথাসাহিত্যিক, যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী; আজিম বখস, সভাপতি, ঢাকা কেন্দ্র; ড. সাইমন জাকারিয়া, বাংলা একাডেমি এবং ড. আব্দুল আলিম, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

এছাড়া একটি লক্ষ্য, উদ্দেশ্য ও নিয়মাবলী প্রণয়ন উপ-কমিটি গঠন করা হয়। এর আহ্বায়ক অধ্যাপক মাহফুজা খানম, সভাপতি, এশিয়াটিক সোসাইটি; প্রফেসর ড. হারুন অর রশিদ, উপাচার্য, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় এবং মোহাম্মদ শাজাহান মিয়া, পরিচালক, বঙ্গীয় গ্রন্থ জাদুঘর। সদস্য সচিব : ড. মোহাম্মদ সেলিম, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়; বুলবুল মহলানবীশ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক, অগ্রসর বিক্রমপুর ফাউন্ডেশন; ড. জাহিদ হোসেন, প্রধান লাইব্রেরিয়ান, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় এবং ড. সাইমন জাকারিয়া, পরিচালক, বাংলা একাডেমি। –

প্রেস বিজ্ঞপ্তি
ইত্তেফাক

Leave a Reply