বাউশিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ক্যাম্প ভাংচুর

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার বাউশিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী একটি ক্যাম্প ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। আগুনে ক্যাম্পটির আংশিক পুড়ে যায়।

এ ঘটনায় বাউশিয়া ইউনিয়ন ০২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক জাকির হোসেন বাদী হয়ে গজারিয়া থানায় একটি মামলা করেছেন। মামলায় গজারিয়া উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ইসহাক আলীসহ ৩৮ নামীয় ও অজ্ঞাত ৫০/৬০ জনকে আসামী করা হয়েছে।

বাউশিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা সারোয়ার বিপ্লব জানান, সোমবার (২৪ ডিসেম্বর) গভীর রাতে বাউশিয়া এম.এ আজহার উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন ১ ও ২ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ক্যাম্পটিতে ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। বিএনপি-জামাতের সন্ত্রাসীরা রাতের আধারে এ কাজ করেছে বলে তিনি দাবী করেন।

এদিকে মঙ্গলবার (২৫ ডিসেম্বর) সকালে এ ঘটনার প্রতিবাদে বাউশিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা সারোয়ার বিপ্লব ও বাউশিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: মিজানুর রহমান প্রধানের নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। এসময় তারা এ ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত আটক করে আইনের আওতায় আনার দাবী জানান। এসময় অন্যান্যর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা হারুন মোল্লা, আওয়ামী লীগ নেতা শ্যামল পাঠান,উপজেলা ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক আহমেদ রুবেল প্রমূখ।

এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে গজারিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো: আমিরুল ইসলাম বলেন, নৌকার পক্ষে গণজোয়ার দেখে বিএনপি-জামাত জোট ভীত তাই তারা নাশকতা করে ভোটারদের মনে আতংক সৃষ্টি করার বৃথা চেষ্টা করছে। একাত্তরের পরাজিত এই শক্তি আগামী ৩০ তারিখ আবারো পরাজিত হবে বলে জানান তিনি।

তবে এ ঘটনায় বিএনপি নেতাকর্মীদের জড়িত থাকা কথা নাচক করে দিয়ে গজারিয়া উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ইসহাক আলী বলেছেন, আওয়ামী লীগের হামলা-হামলার ভয়ে তারা এলাকা ছাড়া । প্রাণ ভয়ে পালিয়ে বোড়ানো নেতাকর্মীরা একাজ করার মত সাহস পাবেনা।

বিষয়টি সম্পর্কে গজারিয়া থানা অফিসার ইনচার্জ মো: হারুন অর রশীদের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, এ ঘটনায় মামলা দায়ের হয়েছে আসামী আটকে সর্বাত্মক চেষ্টা করছেন তারা।

বিডি২৪লাইভ

Leave a Reply