মন্ত্রিত্ব পাচ্ছেন কারা? মুন্সীগঞ্জ আলোচনা

মন্ত্রিত্ব পাচ্ছেন কারা? এই নিয়ে মুন্সীগঞ্জে বিভিন্ন মহলে চলছে আলোচনা। এই নিয়ে নানা রকমের হিসাব-নিকাশও চলছে। মুন্সীগঞ্জের তিন আসনে নির্বাচিত সাংসদদের এবার মন্ত্রিপরিষদে দেখতে চায় এ অঞ্চলের মানুষ। কারণ এই তিন সাংসদ মন্ত্রিপরিষদে থাকলে প্রধানমন্ত্রী কাজকে এগিয়ে নেয়ার পাশাপাশি এই অঞ্চলের জন্য অনেক বেশি অবদান রাখতে পারবেন। কারণ এর আগেও এই জেলার তিন আসনের সকলেই এক যোগে মন্ত্রী ছিলেন এমন রীতিও রয়েছে। তাই যোগ্যতার দৃষ্টিভঙ্গি থেকে মন্ত্রিপরিষদে স্থান হওয়া সময়ের দাবি। কারণ দীর্ঘদিন ধরে এই জেলায় মন্ত্রী নেই। এছাড়া স্বাধীনতার আগে থেকেই নিয়মিত মুন্সীগঞ্জ তথা বিক্রমপুর থেকে মন্ত্রী ছিল।

এই জেলা থেকে রাষ্ট্রপতিসহ নানা গুরুত্বপূর্ণ পদ লাভ করেছেন মুন্সীগঞ্জের রাজনীতিকরা। তাদের সূত্র ধরেই অনেক যোগ্য ও সৎ এবং কর্মবীর রাজনীতিক উঠে এসেছেন নানা প্রতিকূলতার মধ্যেও। এর মধ্যে এক নারী রাজনীতিক শুধু এই জেলায় নয় সারা বাংলাদেশের আলোকবর্তিকা হিসেবে সুপরিচিত। হুইপের দায়িত্ব পালন কালেও তিনি দেশে-বিদেশে সুনাম কুড়িয়েছেন। তার সৎ ও সত্য-সুন্দরের পক্ষের রাজনীতি এই অঞ্চলের রাজনীতির চেহারা পাল্টে দিয়েছে। আওয়ামী লীগ তথা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষ শক্তি এখানে শক্ত অবস্থান নিয়েছে এই নারীর সাহসী ভূমিকায়। ভৌগলিক কারণ, যোগ্যতা ও দলীয় ক্ষেত্রে অবদান বিবেচনায় এবার মুন্সীগঞ্জ থেকে মন্ত্রী দাবি প্রবল।

মুন্সীগঞ্জের তিন আসনের মধ্যে মুন্সীগঞ্জ-১ আসনে এবার নৌকা নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন মহাজোটের শরিক দল বিকল্পধারার যুগ্ম মহাসচিব ও এই আসনে আরও দু’বার উপ-নির্বাচনে বিজয়ী মাহী বি চৌধুরী। মুন্সীগঞ্জ-২ আসনে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি। তিনি এই নিয়ে চতুর্থবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন।

মুন্সীগঞ্জ-৩ আসন থেকে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় মুক্তিযোদ্ধা সম্পাদক এ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস। এই আসন থেকে তিনি পরপর দু’বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলেন। মন্ত্রী হওয়ার ক্ষেত্রে নানা কারণে মুন্সীগঞ্জের তিন জনের নামই আসে। তবে সিনিয়র সাংসদ এবং ত্যাগী ও দলের জন্য নিবেদিত প্রাণ হিসেবে সবার আগে নাম এসে যায় সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলির। কারণ একজন নারী হয়েও দীর্ঘদিন ধরে তিনি একনিষ্ঠতভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি আসনটিতে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী তথা বাঘা বাঘা প্রার্থীদের পরাজিত করে বিজয়ী হয়েছেন। তবে চারবার পূর্ণ সংসদ সদস্য থাকা সত্ত্বেও মন্ত্রী হননি। তাই এবার মন্ত্রী হিসেবে তার নাম আসতে পারে বলে বিশ্লেষকদের অনেকের ধারণা। তার সততা, দক্ষতা যোগ্যতাকে বিবেচনায় এনে এবার কর্মঠ নারী হিসেবে তার সম্ভবনা উজ্জ্বল। এছাড়া নারী হিসেবেও তিনি বাড়তি সুবিধায় রয়েছেন।

মুন্সীগঞ্জ-৩ আসন থেকে নির্বাচিত এ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাসের নামও মন্ত্রী হিসেবে উচ্চারিত হচ্ছে। কেন্দ্রীয় নেতা ছাড়াও তার ত্যাগ ও কর্মযোগ্যতাকে বিবেচনায় এনে তাকেও মন্ত্রী করা হতে পারে। নতুন মন্ত্রীর সম্ভাব্য তালিকায় তার নামও উচ্চারিত হচ্ছে।

মুন্সীগঞ্জ-১ আসনে বিকল্পধারার যুগ্ম মহাসচিব মাহী বি চৌধুরী নব-নির্বাচিত সংসদ সদস্য। তিনি এর আগে আরও দু’বার উপ-নির্বাচনে জয়ী হয়েছিলেন। বিকল্পধারা এবার দুটি আসন পেয়েছে। লক্ষ্মীপুর-৪ আসনে বিজয়ী হয়েছেন মাহীর শ্বশুর বিকল্পধারার মহাসচিব মেজর (অব) এম এ মান্নান। তাই মহাজোটের শরিক দল হিসেবে বিকল্পধারা মন্ত্রিত্ব পাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। সেক্ষেত্রে মাহীর নামই আগে আসছে। তাই মাহীও এবারের মন্ত্রী পরিষদে স্থান করে নিতে পারেন। বিশ্লেষকরা সব হিসাব-নিকাশ করে বলছেন, নানা কারণেই এবার মুন্সীগঞ্জ থেকে একাধিক সাংসদ মন্ত্রিপরিষদে স্থান পেতে পারেন।

বৃহস্পতিবার নব-নির্বাচিত সাংসদদের শপথ অনুষ্ঠানের পর আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের বৈঠকে দলীয় প্রধান শেখ হাসিনাকে সংসদীয় দলের নেতা নির্বাচিত করা হয়েছে। একাদশ জাতীয় সংসদের সংখ্যাগরিষ্ঠ দল আওয়ামী লীগ প্রধান শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বেলা ১১টার পর স্পীকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর কাছ থেকে শপথ নেন। শপথের পর সংসদ ভবনেই আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের সদস্যদের বৈঠক হয়।

পরে বিকেলে বঙ্গভবনে আওয়ামী লীগ প্রধান শেখ হাসিনা সৌজন্য সাক্ষাত করতে গেলে রাষ্ট্রপ্রধান আবদুল হামিদ সরকার গঠনের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। সরকার গঠন এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র। তাই মন্ত্রী কারা হচ্ছেন এই নিয়ে চারদিকে চলছে নানা হিসাব-নিকাশ।

জনকন্ঠ

Leave a Reply