মুন্সীগঞ্জে ১৫ প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল, বৈধ ৬২

পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মুন্সীগঞ্জের ছয়টি উপজেলার প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র বাছাই করা হয়েছে। জেলার ছয় উপজেলায় মনোনয়ন জমা দেয়া ৭৭ প্রার্থীর মধ্যে ১৫ প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হয়ে গেছে। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে দু’জন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনজন এবং পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১০ জনের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। বুধবারের এই বাছাইয়ে বৈধ হয়েছে ৬২ প্রার্থী।

জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে মুন্সীগঞ্জ সদর, গজারিয়া ও শ্রীনগর এবং জেলা নির্বাচন অফিসের সম্মেলন কক্ষে টঙ্গিবাড়ী, লৌহজং ও সিরাজদিখান উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থীদের উপস্থিতিতে যাচাই-বাচাই কার্যক্রম চলে।

মুন্সীগঞ্জ সদর, গজারিয়া ও শ্রীনগর এই তিন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. হারুন-অর-রশিদ এবং টঙ্গিবাড়ী, লৌহজং ও সিরাজদিখান উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন জেলা নির্বাচন অফিসার মো. আনিছুর রহমান। আগামী ৩১ মার্চ মুন্সীগঞ্জ জেলার ছয়টি উপজেলায় নির্বাচন সম্পন্ন হবে।

যাদের মনোনয়ন বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে তারা হলেন

গজারিয়া : গজারিয়ায় বাতিল হয়েছে পাঁচ প্রার্থীর মনোনয়ন। এর চেয়ারম্যান পদে একজন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে একজন এবং পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিন জনের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। গজারিয়ায় চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র হিসাবে ২৫০ ভোটারের স্বাক্ষর সঠিক না থাকায় মনোনয়ন বাতিল হয়ে যায় হানান্ন খানের। এছাড়া একই কারণে পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে মো. মহিউদ্দিন, কবির সরকার ও জহিরুল ইসলামের মনোনয়ন বাতিল করেছে সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং অফিসার।

এই তথ্য দিয়ে সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহা. হারুন-অর-রশীদ জানান, এই উপজেলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২৫ বছরের স্থলে ২২ বছরের কারণে বাতিল হয়েছে আমেনা বেগমের মনোনয়ন।

মুন্সীগঞ্জ সদর : মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলায় পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ইকবাল হাসান জনির মনোনয়ন বাতিল হয়েছে স্বতন্ত্র হিসাবে ২৫০ ভোটারের স্বাক্ষর সঠিক না থাকায়।

লৌহজং উপজেলায় দু’জন পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান এবং একজন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। লৌহজং উপজেলায় বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান জাকির হোসেন ব্যাপীর মনোনয়ন বাতিল করেছে সংশ্লিষ্ট রির্টানিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন অফিসার আনিছুর রহমান।

তিনি জানান, তিনি বিসিআইসির ডিলার থাকার কারণে বিধি অনুয়ায়ী এক প্রার্থী প্রমাণ দাখিল করায় মনোনয়ন বাতিল করা হয়। এই উপজেলায় আতাউর রহমান নামের আরেক ভাইস চেয়ারম্যানের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে স্বতন্ত্র হিসাবে ২৫০ ভোটারের স্বাক্ষর সঠিক না থাকায়। এছাড়া এই উপজেলায় হলফনামায় সঠিক তথ্য না প্রদান করায় মোসাম্মদ ডালিয়া বেগমের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে।

টঙ্গিবাড়ী : উপজেলায় ছয় জনের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে এক জন মহিলা ভাই চেয়ারম্যান পদে একজন এবং পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে চার জন। আয়কর দাতা না হওয়ার কারণে টঙ্গীবাড়ি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে আব্দুল কাদের মল্লিকের। এছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান পদে বাংলাদেশ ব্যাংকের সিআইবি রিপোর্ট অনুযায়ী গ্যারেন্টার হিসাবে ঋণ খেলাপী হওয়ায় নবীন কুমার রায়ের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। আয়কর দাতা না হওয়ার কারণে আব্দুল মান্নান খান ও মিজান খানের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। মো. তাজুল ইসলাম দেওয়ানের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে স্বতন্ত্র হিসাবে ২৫০ ভোটারের স্বাক্ষর সঠিক না থাকায়। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে হেনা বেগমের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে ইউপির বর্তমান মেম্বার থাকার কারণে। তবে শ্রীনগর এবং সিরাজদিখান উপজেলার কোন প্রার্থী মনোনয়ন বাতিল হয়নি।

এদিকে জেলার রিটার্নি কর্মকর্তার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়া প্রার্থীদের আপিলের সুযোগ রয়েছে।

অবজারভার

Leave a Reply