পদ্মার তলদেশ দিয়ে লাইনে বিদ্যুৎ যাচ্ছে নড়িয়ার চরে

রাজধানী ঢাকার খুব দূরে না হলেও প্রায় শত বছর আগে গড়ে ওঠা শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার চর নওপাড়া ও চর আত্রার মানুষ হারিকেন ও প্রদীপের আলো ছাড়া কখনো বিদ্যুতের আলো পায়নি।

এবার পদ্মা নদীর তলদেশ দিয়ে কেবলের মাধ্যমে সেই চরে বিদ্যুৎ দেওয়া হচ্ছে বলে শরীয়তপুর-২ আসনের সাংসদ ও পানি সস্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম জানিয়েছেন।

তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “এই চরে প্রায় ৭০ হাজার মানুষ বসবাস করে। এই এলাকার মানুষের দীর্ঘ দিনের আশা-আকাঙ্ক্ষা হল বিদ্যুতের আলো। আমরা উদ্যোগ নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি।“

আগামী ২৩ এপ্রিল পদ্মা নদীর ৮০০ মিটার অংশে বিদ্যুতের লাইনের নেওয়ার কাজের উদ্বোধন করা হবে বলে জানান পানি সম্পদ উপমন্ত্রী।

নড়িয়া উপজেলার নওপাড়া ও চর আত্রা ইউনিয়নের পাশাপাশি ভেদরগঞ্জ উপজেলার কাঁচিকাটা ইউনিয়নেও বিদ্যুৎ দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

তিনটি চরের মানুষের অধিকতর বিদ্যুত সুবিধার জন্য চর আত্রায় একটি সাব পাওয়ার স্টেশন করা হবে বলেও জানান এনামুল হক শামীম।

মুন্সীগঞ্জ জেলার নির্বাহী প্রকৌশলী জয়নাল আবেদিন বলছেন, আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই এই চর এলাকার মানুষ বিদ্যুতের আওতায় আসবে বলে আশা করা হচ্ছে।

তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “পদ্মা নদীর শরীয়তপুর অংশের তীর থেকে ওই চরের নদীর দৈর্ঘ্য সাড়ে পাঁচ থেকে ছয় কিলোমিটার। এ কারণে শরীয়তপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি থেকে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া সম্ভব হবে না।

“এ সময় সিদ্ধান্ত হয় মুন্সিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি থেকে ওই এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হবে।”

বিডিনিউজ

Leave a Reply