গজারিয়ায় গুলিবিদ্ধ সেই যুবকের মৃত্যু

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় শিপইয়ার্ডের ভাঙ্গারি ব্যবসা ও এলাকার আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় গুলিবিদ্ধ আরমান মুফতি (২০) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

এর আগে সোমবার সকাল ৭টার দিকে উপজেলার মেঘনা নদী লাগোয়া ইস্মানিরচর গ্রামের নিজ বাড়িতে তাকে গুলি করা হয়।

নিহত আরমান মুফতি সৌদি আবর থেকে গত ৫-৬ মাস আগে ফিরে শিপইয়ার্ডে কাজ শুরু করে।

গজারিয়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান জানান, বসুন্ধরা শিপইয়ার্ডের ভাঙ্গারি (গর্দা) দখল নেয়াকে কেন্দ্র করে ইস্মানিরচরের বিএনপি সমর্থক রিপন গ্রুপ ও আওয়ামী লীগ সমর্থক আতাউরের মধ্যে দীর্ঘ দিন ধরে দ্বন্দ্ব লেগে আছে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকায় রিপন অনেকটা দুর্বল হয়ে পড়লে তার পক্ষে আওয়ামী লীগ ঘরানার হারুন, রায়হান, হাসান, মিম, কিরণ, হুমায়ুন ইব্রাহিম গ্রুপ ভাঙ্গারি ব্যবসার হাল ধরে। এরই মধ্যে মাসখানেক আগে এলাকার মুদি দোকানি জহির ফরাজিকে মারধরের মামলায় আতাউর এলাকা ছাড়া হয়। এই সুযোগে গত সোমবার (১৩ মে) সকাল ৭ টার দিকে রিপন-হারুন গ্রুপের লোকজন আতাউর গ্রুপের লোকদের বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় আতাউর গ্রুপের আরমানকে গুলি করে তারা পালিয়ে যায়। আরমানের বুকে ও ডান হাতে গুলি লাগলে গুরুতর আহত হয় আরমান। পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এই ঘটনায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে ১২ জনকে আটক করে। নিহতের বাবা জসিম মুফতি ৩৬ জনকে আসামি করে গজারিয়া থানায় মামলা করেন। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

অবজারভার

Leave a Reply