সিরাজদীখানে বিকল্প রাস্তা না করে চলছে সেতুর কাজ, দুর্ভোগ

সিরাজদীখান উপজেলার ইমামগঞ্জ-বাসাইল-গুয়াখোলা সড়কে বাসাইল বাজার-সংলগ্ন খালের ওপর এলজিইডি বিভাগের ৩০ মিটার দীর্ঘ ব্রিজ নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে প্রায় ছয় মাস ধরে; কিন্তু ব্রিজের পাশে জনসাধারণের চলাচলের জন্য বিকল্প রাস্তা নির্মাণ না করায় চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন ওই রাস্তায় চলাচলকারী হাজারো পথচারী।

রাস্তাটি প্রায় চার-পাঁচ গ্রামের জনসাধারণের রাজধানী ঢাকাসহ উপজেলা-ইউনিয়ন পরিষদ, স্কুল-কলেজ ও স্থানীয় হাটবাজারে যাতায়াতের একমাত্র পথ। ওই স্থানে পুরনো ব্রিজটি ভেঙে ফেলার পর দু’পাশের রাস্তার মাটি এমন খাড়াভাবে কাটা হয়েছে যে, তাতে বৃদ্ধসহ নারী ও শিশুদের পক্ষে ওঠানামা করা অত্যন্ত কঠিন। বিশেষ করে বৃষ্টি হলে তখন কাদাপানিতে জায়গাটি পিচ্ছিল হয়ে সবার পক্ষে চলাচল করা কঠিন হয়ে পড়ে। প্রায় সোয়া দুই কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ব্রিজটির ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানটি হচ্ছে এশিয়া ট্রাফিক টেকনোলজি লিমিটেড। ব্রিজের পাশে কর্মরত লোকজন বিকল্প রাস্তা নির্মাণের ব্যাপারে কোনো কিছু জানেন না বলে জানান। বাসাইল উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র রাসেল মাহমুদ বলেন, ‘বিশেষ করে ওই রাস্তাটি দিয়ে আমাদের মতো স্কুল শিক্ষার্থীদের ঝুঁকি নিয়েই যেতে হয় আর বৃষ্টি হলে তো আসা-যাওয়াটাই মুশকিল।’

এ ব্যাপারে সিরাজদীখান উপজেলা প্রকৌশলী শোয়েব বিন আজাদ জানান, ‘নির্মিত ব্রিজের পাশে বিকল্প রাস্তা বা সাঁকো নির্মাণের জন্য ঠিকাদারকে তাগিদ দেওয়া হয়েছে। খুব শিগগির কাজ শুরু করা হবে বলে জানান তিনি।’

সমকাল

Leave a Reply