গজারিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বহিরাগতদের দৌরাত্মে সিসি ক্যামেরা স্থাপন

গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বহিরাগতদের দৌরাত্ম প্রতিরোধে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের উদ্যোগ গ্রহন করছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে সেবা নিতে আসা রোগীদের প্রায় সময় উটকো ঝামেলা পোহাতে হয় এমনকি দায়িত্বরত চিকিৎসকগন বহিরাগতদের কারণে বিড়ম্বনায় পড়তেন মাঝে মধ্যে।

স্থানীয় কর্তৃপক্ষ মূলত বহিরাগত বলতে বিভিন্ন ওষুধ কোম্পানির প্রতিনিধি, বিক্রয় কর্মী ও স্থানীয় বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়োগনস্টিক সেন্টারের প্রতিনিধিদের বুঝিয়েছেন। তাছাড়া কমপ্লেক্স কম্পাউন্ডের আবাসিক এলাকায় মাদকাসক্ত কিছুসংখ্যক মানুষ যে কোন সময়ে ঢুকে অবস্থান করা কর্মকর্তায় কর্মচারীদের নিরাপত্তার বিঘ্ন ঘটায় গত কয়েক মাসে একাধিক চুরির ঘটনা ঘটেছে আবাসিক এলাকায়।

দায়িত্বরত একাধিক চিকিৎসক নাম প্রকাশ না করে জানান, আগত রোগীরা যাতে যথাযথভাবে চিকিৎসা সেবা নিতে পারে তাই এই ব্যবস্থা।

একাধিক সূত্র জানায়, অধিকাংশ সময় স্থানীয় ক্লিনিক, ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও মেডিকেল প্রতিনিধিরা সেবা গ্রহিতাদের কাজে বিঘ্ন ঘটায়।

বিভিন্ন পরিক্ষা ও ল্যাব টেস্টসহ ক্লিনিকে রোগীদের ফুসলিয়ে ভাগিয়ে নেয়ার ঘটনা ঘটে। এমনকি অপ্রয়োজনীয় টেস্ট লিখতে দায়িত্বরত চিকিৎসকদের প্ররোচিত বা বাধ্য করে।

উপজেলা স্বাস্থ্য অফিসার মো. আশ্রাফুল আলম সিসি ক্যামেরা স্থাপনের কথা নিশ্চিত করে মঙ্গলবার জানান, উপজেলা পরিষদ ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সাহিদ মো. লিটনের সহায়তায় প্রধান ফটক, বহিঃবিভাগ ও জরুরী বিভাগে ক্যামেরা স্থাপন করার পর ফলপ্রসূ ফলাফল পেয়েছি। আরো বিভিন্ন পয়েন্টে ক্যামেরা স্থাপন করে ওয়াইফাই সংযোগের মাধ্যমে হাসপাতাল কম্পাউন্ড চব্বিশ ঘন্টা মনিটরিংয়ের আওতায় আনা হবে।

অবজারভার

Leave a Reply