গজারিয়ায় ছেলেধরা সন্দেহে একজনকে গণপিটুনি

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার বালুয়াকান্দি ইউনিয়নের বড় রায়পাড়া গ্রামে ছেলেধরা সন্দেহে হাকিম আলী (৫৫) নামে একজনকে গণপিটুনি দিয়েছেন জনতা। খবর পেয়ে গজারিয়া থানা পুলিশ তাকে উদ্ধার করে। পরে প্রাথমিক তদন্তে নিরপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

সন্দেহভাজন ব্যক্তি হাকিম আলী নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার লাওসার গ্রামের মৃত হোসেন আলীর ছেলে বলে জানা গেছে।

ঘটনায় অভিযুক্ত হাকিম আলীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সোমবার (২২ জুলাই) নিজ বাড়ি নারায়ণগঞ্জের বন্দর থেকে মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ার তেতৈইতলা গ্রামে আত্মীয় উকিল উদ্দিনের বাড়িতে বেড়াতে এসেছিলেন।

মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) গ্রাম ঘুড়ে দেখার উদ্দেশ্যে বের হয়ে হাটতে হাটতে পাশের গ্রাম বড় রায়পারা গ্রামে চলে যান। সেখানে একটি দোকান থেকে চকলেট কেনার সময় স্থানীয় লোকজনের নানা প্রশ্নের সম্মুখীন হন তিনি।

এক পর্যায়ে উত্তেজিত জনতা ছেলেধরা সন্দেহে মারধর শুরু করে। পরে খবর পেয়ে গজারিয়া থানা পুলিশ তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে পাঠায়। প্রাথমিক চিকিৎসার পর প্রাথমিক তদন্তে লোকটি নিরপরাধ বলে নিশ্চিত হয় পুলিশ। পরে তার আত্মীয় উকিল উদ্দিনের জিম্মায় তাকে ছেড়ে দেয়।

গজারিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হারুন অর রসিদ জানান, প্রাথমিক তদন্তে বিষয়টি গুজব ও লোকটি নিরপরাধ বলে নিশ্চিত হই আমরা। লোকটি নির্দোষ হওয়ায় তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

দৈনিক অধিকার

Leave a Reply