লৌহজংয়ে মায়ের জাত চেনালেন এক মা

মা স্রষ্টার এক অপার ও শ্রেষ্ঠ দান। মা মানেই শত দুঃখ, বেদনা, যন্ত্রণা সওয়া এক নারী। অনেক সন্তানের কাছে মা মানেই দুনিয়া, সবকিছু; সেরা বন্ধু ও ভরসার স্থল। কিন্তু মাকে কষ্ট দেওয়া সন্তানের সংখ্যাও এ অসহিষ্ণু সমাজে দিনকে দিন বেড়ে যাচ্ছে।

এমনি একটি ঘটনা ঘটে গেল গত বৃহস্পতিবার লৌহজং থানায়।

পারিবারিক জমিজমা নিয়ে মায়ের উপর আঘাত করেন এক মায়ের সন্তান। অথচ স্বামীহারা পাঁচ সন্তানের মাকে সেই সন্তান ভাতও দেন না বলে জানা গেছে। স্ত্রীসন্তানদের নিয়ে আলাদা থাকেন সে সন্তান। স্থানীয় জনৈক দুই ইউপি সদস্য মাকে আঘাত করা ছেলের পক্ষে নেন। এ ঘটনার প্রতিকার পেতে লৌহজং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসাইনের দ্বারস্থ হন সেই মা। ওসি ওই ছেলেকে থানায় ডেকে পাঠান। ছেলে স্থানীয় একজন বর্তমান ও একজন সাবেক ইউপি সদস্যকে সঙ্গে করে নিয়ে আসেন। খারাপ ছেলের পক্ষ নেওয়া ইউপি সদস্যদেরকে রুম থেকে বের করে দেন ওসি আলমগীর।

এরপরে ঘটনার সত্যতা যাচাই করে ছেলেকে মায়ের সামনেই পুলিশ কয়েকটা প্যাঁদানি দিতেই সেই মা সব রাগ-অভিমান, আঘাতের কথা ভুলে গিয়ে ওসির পা জড়িয়ে ধরে ছেলেকে আর না মারার জন্য অনুরোধ করেন। ছেলে তার ভুল বুঝতে পারে। ভবিষ্যতে মাকে আর কখনো অসম্মান করবে না বলে কথা দেন ছেলে। ওসি আলমগীর ভূমি অফিসের লোকদের সহায়তায় তাদের জমিজমা সংক্রান্ত সমস্যার সমাধান করে দিবেন বলে আশ্বস্ত করেন এবং মা ও ছেলেকে হাসিখুশি পরিবেশে মিলিয়ে দেন। এতে উপস্থিত লোকজন মা-ছেলের এ ঘটনায় বিস্মিত হন এবং ওসি আলমগীর হোসাইনের ভূমিকার উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেন। মা ও ছেলের বাড়ি উপজেলার কলমা গ্রামে। গত কয়েকদিনে এ ঘটনা ফেসবুকে ঝড় তুলেছে, অসংখ্য লাইক ও কমেন্টস পড়েছে।

Journalist Jhilu’র ফেবু থেকে

Leave a Reply