মুক্তিযুদ্ধের টুকরো ইতিহাস : ২

সাহাদাত পারভেজ: ১২ মে দুপুরে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখান থানায় অনুপ্রবেশ করে। স্থানীয় দালালরা যখন পাকিস্তানি সৈন্যদের সংবর্ধনা দিতে ব্যস্ত, তখন মধ্যম শিয়ালদী গ্রামের অসীম সাহসী যুবক আবদুল আজিজ তালুকদার মৃত্যুভয় উপেক্ষা করে থানার সামনে গিয়ে জয়বাংলা বলে স্লোগান দিতে থাকেন। হানাদাররা তাকে ধরতে এলে তিনি বুক এগিয়ে দেন। তাকে হাত বেঁধে ডাকবাংলোর পেছনের ইছামতি নদীর ঘাটে নিয়ে যাওয়া হয়। কোমর পানিতে নামিয়ে হানাদাররা তাকে ব্যঙ্গ করে বলে, ‘জয় বাংলা নয়, বল জয় পাকিস্তান’। তিনি বাঘের মতো গর্জে ওঠেন, আর বলতে থাকেন ‘জয়বাংলা’। হানাদারদের গুলি আর বেয়নেটের আঘাতে তার শরীর লাল হয়ে ওঠে। আজিজের রক্তে নদীর পানি আবিরের রং ধারণ করে। জয়বাংলা বলতে বলতে ২৭ বছরের এই মৃত্যুঞ্জয়ী তরুণ ইছামতির বুকে তলিয়ে যান।

এই মুক্তি সংগ্রামীর মৃত্যুর সংবাদে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। চারপাশে ছড়িয়ে পড়ে আতংক। পরদিন সকালে তাকে গ্রামের গোরস্থানে সমাহিত করা হয়। ১৯৯৭ সালে কবরটি পাকা করা হয়। কবরের গায়ে এই বীর শহদিরে নাম এবং মৃত্যুর তারিখ লেখা রয়েছে।

Leave a Reply