সিরাজদিখানে জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা এখনো বাস্তবায়ন করা হয়নি!

মুন্সীগঞ্জ জেলা কমিটির সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী করোনা ভাইরাস (কোভিট-১৯) বিস্তৃতি ও সংক্রমণ ঝুঁকি মোকাবেলায় জেলায় জনসাধারণের প্রবেশ ও প্রস্থান নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে গত ১০ এপ্রিল জেলা প্রশাসক মোঃ মনিরুজ্জামান তালুকদার স্বাক্ষরিত গণবিজ্ঞপ্তিতে জরুরী বিধি নিষেধ জারী করা হয়। এতে জেলার এক ইউনিয়ন থেকে অন্য ইউনিয়নের যেকোন প্রবেশ পথ দিয়ে যান বাহন প্রবেশ ও প্রস্থানের নিষেধাজ্ঞা জারী করে জেলার প্রতিটি ইউনিয়নের প্রবেশপথ সমূহে ব্যারিকেড স্থাপন করে চলাচল নিয়ন্ত্রণের রাখার জন্য ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, ওয়ার্ড মেম্বার ও গ্রাম পুলিশদের নির্দেশনা দেয়া হয়।


কিন্তু জেলা প্রশাসন কর্তৃক জারীকৃত নির্দেশনা সিরাজদিখান উপজেলায় গত তিন দিনেও বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কোন চেয়ারম্যান, মেম্বার ও গ্রাম পুলিশকে উদ্যোগ নিতে দেখা যায়নি। নারায়ণগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ সদর ও টংগিবাড়ী থেকে সিরাজদিখান উপজেলা প্রবেশ পথ বাড়ৈপারা ব্রিজ। মধ্যপাড়া,ইছাপুরা ও শ্রীনগর উপজেলা থেকে মালখানগর হয়ে মুন্সীগঞ্জ সদরে যাওয়ার কাকালদী জোর পুলের মোড়। বয়রাগাদী থেকে মালখানগরের প্রবেশ পথের ব্রীজ। জোর পুল (জংসন রোড) সিরাজদিখান উপজেলায় প্রবেশ পথের ব্রীজসমূহ খোলা থাকায় অন্য উপজেলা থেকে যানবাহন প্রবেশ করছে এবং বেরও হচ্ছে ।


এছাড়া উপজেলার তালতলা বাজারের পূর্ব দিকের নদীপথে দুইটি খেয়া ঘাট রয়েছে। এ খেয়া ঘাট দুটো পার হয়ে খুব সহজেই নারায়ণগঞ্জ জেলা থেকে সিরাজদিখানে উপজেলায় প্রবেশ করা যায়। এতে করে উপজেলাবাসী করোনা ভাইরাস আতঙ্কে রয়েছে। এব্যাপারে সিরাজদিখান উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানদের কাছে জানতে চাইলে অনেক চেয়ারম্যান বিষয়টি জানেনা বলে জানান।

মোহাম্মদ রোমান হাওলাদার
অধিকারপত্র

Leave a Reply