টঙ্গীবাড়ীতে ঝুকি পূর্ণ বেইলি ব্রীজ দিয়ে গাড়ি যাতায়াত বন্ধ ভোগান্তিতে এলাকা বাসী

মোজাফফর হোসেন: মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলার বাঘিয়া বাজারের সামনের ঝুকি পূর্ণ বেইলি ব্রীজের মুখে বাস দিয়ে গাড়ি চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে ঐ এলাকার কিছু লোক। ফলে এ অঞ্চলের ওই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত কারীরা চরম ভোগান্তিতে পরেছে এলাকা বাসী। কয়েক কিলো মিটার রাস্তা ঘুরে উপজেলার কামাড়খাড়া, দিঘিরপাড়, যশলং ইউনিয়নসহ সদর উপজেলার শিলই ইউনিয়নের হাজার হজার যাত্রিদের যানবাহনে চলাচল করতে হচ্ছে।

সর জমিনে গিয়ে দেখা যায়, টঙ্গীবাড়ী বাজার হতে কালি বাড়ি হয়ে ও পুড়া হয়ে দিঘির পাড় যাওয়ার সংযোগ সড়কের বাঘিয়া বাজারের সামনের বেইলি ব্রীজটি সামনে বাঁশ দিয়ে বেড়া নির্মাণ করে রেখেছে ওই এলাকার কিছু লোকজন। ব্রীজটির বুক জুড়ে অসংখ্য ড়োড়া তালি। স্থানে স্থানে বেইলি ব্রীজটির প্লেট উঠে গেছে। ব্যাস্ততম রাস্তাটির মধ্যে ব্রীজটি বন্ধ করে দেওয়ায় বাঘিয়া বাজারের ব্যবসায়ীরা বাজারে মালামাল নিতে চরম বিপাকে পড়েছে। বাঘিয়া বাজারের কতিপয় ব্যবসায়ী জানান, ব্রীজটির সামনে বাঁশ দিয়ে বেঁধে রাখায় তাদের ওই স্থানে পণ্য রেখে পড়ে লেবার দিয়ে পণ্য মাথায় করে নেওয়ায় অতিরিক্ত ব্যায় হচ্ছে।

বাঘিয়া বাজার কমিটির সাধারন সম্পাদক হিরন বকাউল জানান, দিঘিরপাড় বাজারের কাঠ ভর্তি ট্রাক এবং বাঘিয়া বাজারের আল-মদিনা কোল্ড স্টোরেজের ট্রাক ভর্তি আলু জোড়া তালি ব্রীজটি দিয়ে যাতায়াত করায় ব্রীজের কয়েকটা পার্ট উঠে গেছে। যে কোন মুহুর্তে ব্রীজটি ভেঙ্গে পরার আশংঙ্কা দেখা দেওয়ায় ব্রীজের মুখে বাস দিয়ে যাতায়াত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে যশলং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলমাস চোকদার জানান, ব্রীজটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় এটার উপর দিয়ে যানচলাচল বন্ধ করে দিয়েছে ওই এলাকার লোক জন। আমরা কয়েক বার উপজেলা প্রকৌশলী অফিসে যোগাযোগ করেছি তারা দ্রুত ব্রীজটি সংস্কার করে দিবে বলেছে।

এই ব্যাপারে টঙ্গীবাড়ী উপজেলা প্রকৌশলী শাহা মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, ওই স্থানে আর সিসি ব্রীজ নির্মাণের জন্য ইতিমধ্যে বরাদ্দ হয়েছে। এ বছর বাজেট শেষ হয়ে যাওয়ায় দ্রুত ব্রীজটি সংস্কার করা সম্ভব হচ্ছেনা। তবে নতুন অর্থ বছর যেহেতু সামনে দ্রুত সংস্কার করার জন্য আমারা চেষ্টা করবো।

Leave a Reply