মুন্সীগঞ্জে বন্যায় প্রাণীসম্পদের ক্ষতি সাড়ে ৮ কোটি

রিয়াদ হোসাইন: এ বছর বন্যায় প্রাণীসম্পদ অধিদপ্তরের প্রায় সাড়ে ৮ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। বন্যার কারণে পশুখাদ্য বিনষ্ট, খামারের অবকাঠামো ক্ষতি, গবাদিপশু ও হাঁস-মুরগি মৃত্যুর কারণে এ ক্ষতি হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. কুমোত রঞ্জন মিত্র।

জেলা পানি সম্পদ অধিদপ্তরের তথ্যমতে, মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর, লৌহজং ও টঙ্গীবাড়ী উপজেলার ২২ ইউনিয়নের ৩৫ হাজার ৩২৫ টি গরু, ৫ হাজার ৫টি ছাগল, ২৩০টি ভেড়া, ১ লাখ ৪০ হাজার ৭০০টি মুরগী ও ১৩ হাজার ৩০০টি হাঁস পানিবন্দী রয়েছে। এছাড়া ৫২ হাজার ১০২ একর গোচারণ ভূমি ও কাঁচা ঘাসের জমি তলিয়ে গেছে। এদিকে জেলার ১৩৩টি গবাদি পশু এবং ১১৩টি হাঁস-মুরগির খামারের অবকাঠামো জনিত ক্ষতি হয়েছে সাড়ে ৮১ লাখ টাকা। পাশাপাশি দানাদার খাদ্য ১ হাজার ২০৪ মেট্রিক টন, খড় ৯২৬ মেট্রিক টন ও কাঁচা খাস ১৪ হাজার ১২২ মেট্রিক টন ক্ষতি হয়েছে। পশুখাদ্যের বিনষ্ট জনিত কারণে ৭ কোটি ৫৯ লাখ ৯ হাজার ৫০০ টাকা ক্ষতি হয়েছে। অন্যদিকে গবাদিপশু ও হাঁস-মুরগি মৃত্যু জনিত কারণে ক্ষতি হয়েছে ৪ লাখ ২৪ হাজার ৫০০ টাকা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. কুমোত রঞ্জন মিত্র বলেন, দীর্ঘমেয়াদি বন্যায় গবাদিপশুর ক্ষতি হবে এটা স্বাভাবিক। তবে জেলা প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তর থেকে ৩ হাজার ৮২৫ টি গবাদিপশু ও ২৯ হাজার ৭০০টি হাঁস-মুরগিকে টিকা প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে ১ হাজার ৩৩৫টি গবাদি পশু ও ১২ হাজার ৪০০টি হাঁস-মুরগিকে। এছাড়া এই কর্মকর্তা আরো বলেন এ পর্যন্ত ৫ দশমিক ৭৫ টন পশুখাদ্য বিতরণ করা হয়েছে।

দৈনিক অধিকার

Leave a Reply