মুন্সীকান্দি ও ঢালীকান্দি গ্রামে ফের উত্তেজনাঃ পুলিশের চিরুনি অভিযানে সফলতা নেই

আধিপত্য ও পূর্ববিরোধ নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় মুন্সীগঞ্জের মোল্লাকান্দি ইউনিয়ন আবারও উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। পাঁচ দিন ধরে মুন্সীকান্দি ও ঢালীকান্দি গ্রামসহ আশপাশের গ্রামে উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোনো সময় আবারও দু’পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা গ্রামবাসীর। বৃহস্পতিবার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক স্বপন দেওয়ান ও বিএনপি নেতা উজির আলী পক্ষের মধ্যে হামলা-পাল্টা হামলায় গুলিবিদ্ধসহ আট থেকে ১০ জন আহত হওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে এই উত্তপ্ত পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

অন্যদিকে সংঘর্ষের ঘটনার পর শুক্রবার সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আশফাকুজ্জামানের নেতৃত্বে পাঁচটি গ্রামে সদর থানা পুলিশের চিরুনি অভিযানে কোনো সফলতা না থাকায় ওই অভিযান এলাকায় প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে উঠেছে। অন্যদিকে বৃহস্পতিবার দু’পক্ষের হামলা-পাল্টা হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনায় স্বপন দেওয়ান বাদী হয়ে দাখিল করা অভিযোগ মামলায় নথিভুক্ত করলেও প্রতিপক্ষের অভিযোগ গ্রহণ করেনি সদর থানা পুলিশ। তাদের আদালতে মামলা করার পরামর্শ দেওয়ায় পুলিশের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বেরও অভিযোগ উঠেছে।

তবে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ ভিত্তিহীন দাবি করেন মুন্সীগঞ্জ সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আশফাকুজ্জামান। তিনি দু’পক্ষের সংঘর্ষ ও পুলিশের অভিযান প্রসঙ্গে বলেন, দু’পক্ষের হামলা-পাল্টা হামলার ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তার করতে শুক্রবার দিনভর চিরুনি অভিযান চালানো হয় মোল্লাকান্দি ইউনিয়নে। কিন্তু পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা ককটেল বিস্টেম্ফারণ ঘটিয়ে আত্মগোপনে চলে যাওয়ায় কাউকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। তবে ঘটনাস্থল থেকে ককটেল বিস্টেম্ফারণের আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আশফাকুজ্জামান জানান, সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা হয়েছে। অপর একটি পক্ষকে আদালতে মামলা করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

সমকাল

Leave a Reply