করোনায় মিরকাদিমের ধবল গরু পালতে হিমশিমে খামারিরা (ভিডিও)

কোরবানির জন্য ক্রেতাদের পছন্দের শীর্ষে থাকে মুন্সীগঞ্জের মিরকাদিমের সাদা বা ধবল গরু। তবে করোনায় গো খাদ্যের দাম বৃদ্ধি আর ন্যায্য দাম না পাওয়ায় ঐতিহ্যবাহী এ গরু পালনে আগ্রহ হারাচ্ছেন খামারিরা। এ অবস্থায় ক্ষতিগ্রস্ত খামারিদের প্রয়োজনীয় পরামর্শসহ সহায়তার আশ্বাস দিলেন জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা।

মুন্সীগঞ্জের মিরকাদিমের ধবল গরু দেখতে যেমন সুন্দর, তেমনি এর মাংসও সুস্বাদু। কোরবানির কয়েকমাস আগে থেকে এ গরু পালতে শুরু করেন এখানকার খামারিরা। তবে করোনার দুর্যোগে এ গরু পালতে হিমশিম খাচ্ছেন তারা।

খামারিরা জানান, অন্যসব গরুর তুলনায় উন্নত মানের খাবার ও বিশেষ যত্নের প্রয়োজন হয় এ গরুর জন্য। এ অবস্থায় গো খাদ্যের দাম বৃদ্ধি আর ন্যায্য দাম না পাওয়ায় অনেকেই এ গরু পালনে আগ্রহ হারাচ্ছেন।

এক খামারি বলেন, ৫০ হাজার টাকার গরুতে ৫০ হাজার টাকাই খরচ হয়। গরুটি বিক্রি করতে ১ লাখ ৪০ থেকে দেড় লাখ টাকায় বিক্রির লক্ষ্য থাকে আমাদের। কিন্তু এখন আর এই দাম পাওয়া যায় না বলে মিরকাদিমের কদর হারিয়ে যাচ্ছে।

এক এলাকাবাসী বলেন, গরুর যে খাবারের দাম, দামের কারণে অনেকে খামার বন্ধ করে দিয়েছে।

গরু পালনে বিভিন্ন পরামর্শসহ করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত খামারিদের প্রণোদনার আশ্বাস দিলেন জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা।

মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. কুমুদ রঞ্জন মিত্র বলেন, করোনাকালে খামারিদের সচল রাখার জন্য প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগে সরকারিভাবে প্রণোদনা দেয়া হয়েছে। পরবর্তীতে হয়তো আরও পাবে।

সমস্যা সমাধানে সংশ্লিষ্ট পক্ষ দ্রুত পদক্ষেপ নিলে মিরকাদিমের গরু পালনের এ ঐতিহ্য ধরে রাখা সম্ভব বলে মনে করেন এলাকাবাসী।

আর টিভি

Leave a Reply