শিমুলিয়ায় যানবাহনের চাপ, নেই ঘরমুখো মানুষের ভিড়

মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়ায় বিধিনিষেধ শিথিলের দ্বিতীয় দিন শুক্রবার (১৬ জুলাই) সকালে ঘাটে গাড়ির চাপ থাকলে যাত্রীর চাপ লক্ষ্য করা যায়নি। তবে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যাত্রীরা থেমে থেমে ঘাটে এসে লঞ্চ দিয়ে নদী পাড়ি দিয়ে গন্তব্যে চলে যাচ্ছেন।

তবে ঈদকে সামনে রেখে গণপরিবহন ও ব্যক্তিগত গাড়ির চাপ বাড়ায় ফেরিতে যানবাহন পারাপারে বেগ পেতে হচ্ছে। ঘাটে পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে সাড়ে ৫ শতাধিক ব্যক্তিগত গাড়ি, বাস ও পণ্যবাহী ট্রাক।

এদিকে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ৮২টি লঞ্চ সচল রয়েছে। ফলে ফেরিতে যাত্রীর চাপ ও গাদাগাদি নেই। তবে লঞ্চগুলোতে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। অর্ধেক যাত্রী ধারণের কথা থাকলেও অধিকাংশ লঞ্চ অধিক যাত্রী নিয়ে চলাচল করছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডাব্লিউটিএ) শিমুলিয়া নদী বন্দর কর্মকর্তা মো. সোলাইমান বলেন, নৌরুটে এখন ৮২টি লঞ্চ চলছে।

এ বিষয়ে বিআইডাব্লিউটিএ শিমুলিয়া ঘাটের সহকারী উপ-মহাব্যবস্থাপক শফিকুল ইসলাম জানান, ঘাটে ফেরির সংখ্যা বৃদ্ধি করা হয়েছে। ১৩টি ফেরি দিয়ে যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে সব যানবাহন পারাপার করা হবে। লঞ্চ চালু থাকায় ফেরিতে যাত্রীর চাপ নেই। তবে গণপরিবহন ও প্রচুর ব্যক্তিগত গাড়ি ঘাটে আসায় পণ্যবাহী ট্রাক পারপারে বেগ পেতে হচ্ছে।

ব.ম শামীম/ঢাকা পোষ্ট

Leave a Reply